গাড়ি বাজারের মন্দা সামাল দিতে কর্মী ছাঁটাই মারুতির, অস্থায়ী কর্মীরা শুরুতেই হারাতে পারেন কাজ

গত ৭ বছর ধরে মারুতি সুজুকির গাড়ি বিক্রি কমছে। কেবলমাত্র জুলাই মাসেই মারুতির শেয়ার পড়েছে ৪০ শতাংশেরও বেশি। এবার লোকসান কমাতে অস্থায়ী কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নিল ভারতের এক তৃতীয়াংশ গাড়ি উৎপাদনকারী সংস্থা মারুতি সুজুকি।
বৃহস্পতিবার মারুতির পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১২ সাল থেকে ক্রমশ খারাপ হচ্ছে দেশে গাড়ির বাজার। চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত সংস্থার মোট গাড়ি বিক্রির হার ৩৪ শতাংশ কমে গিয়েছে বলে জানিয়েছিল মারুতি। তাই এবার লোকসান কমাতে কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে যেতে বাধ্য হচ্ছে মারুতি সুজুকি ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড।
আন্তর্জাতিক সংবাদসংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, কয়েক মাস আগে ১৮ হাজার ৮৪৫ জন অস্থায়ী কর্মী নিয়োগ করেছিল মারুতি সুজুকি। জুন মাসেই শেষ হয়েছে তাদের মেয়াদ। এই অস্থায়ী কর্মীদের মেয়াদ পুনর্নবীকরণ না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

চলতি বছরের জুলাইয়ে মারুতির ছোট গাড়ির বিক্রি প্রায় ৭০ শতাংশ নেমে গিয়েছে। এসইউভির বিক্রি কমেছে ৩৮ শতাংশ, এছাড়া অন্যান্য মডেলের বিক্রির হার কমেছে ২৩ শতাংশ। এই প্রেক্ষিতে অন্যান্য অটোমোবাইল সংস্থার মতো পর্যায়ক্রমে গাড়ি উৎপাদন বন্ধ রাখছে মারুতিও। গাড়ির চাহিদা না থাকায় উৎপাদন কম হচ্ছে। ফলে অস্থায়ী কর্মীদেরও কাজ কমছে। লোকসান মোকাবিলার প্রথম উপায় হিসেবে তাই মারুতি অস্থায়ী কর্মীদের ছাঁটাই করার প্রক্রিয়া শুরু করল, এমনটাই মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। মারুতি সুজুকির চেয়ারম্যান আর সি ভার্গব গাড়ি বাজারের মন্দার কথা স্বীকার করে নিলেও, ঠিক কতজন অস্থায়ী কর্মী এর ফলে কাজ হারাতে চলেছেন, তা নিয়ে উচ্চবাচ্য করেননি।
অটোমোবাইল বাজারে তীব্র মন্দার জেরে বিভিন্ন সংস্থা কর্মী ছাঁটাই করে পরিস্থিতি মোকাবিলার কথা ভাবছে। কেউ কেউ এই পথে অনেকটাই এগিয়েও গিয়েছে। কিছুদিন আগেই গাড়ির যন্ত্রাংশ নির্মাতা সংস্থা এসিএমএ জানিয়েছিল, তাদের ৫০ লক্ষ কর্মীর মধ্যে ১০ লক্ষ কর্মীর কাজ যেতে পারে।

Comments
Loading...