ইংরেজি উচ্চারণ নিয়ে নেট মাধ্যমে ট্রোলড, যোগ্য জবাব জুন আন্টির

অভিনেত্রীর মিষ্টিমুখে কড়া উত্তরে প্রচুর মানুষ সমর্থনের পাশাপাশি প্রশংসাও জানিয়েছেন।

বাংলা ধারাবাহিক জগতে উষসী চক্রবর্তী ওরফে ‘জুন আন্টি’ অন্যতম জনপ্রিয় মুখ। ধারাবাহিক ছাড়াও একাধিক সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা গেছে তাঁকে। অভিনয় জগতের বাইরেও বেশ অ্যাক্টিভ ফেসবুকে। সম্প্রতি, সেই ফেসবুক লাইভেই এক নেটিজন অভিনেত্রীর ইংরেজি উচ্চারণ নিয়ে মন্তব্য করেন। সেই মন্তব্যেরই জবাব দিলেন অভিনেত্রী।

অন্যান্য দিনের মতোই গতকাল ফেসবুক লাইভে এসে ছিলেন উষসী চক্রবর্তী। সেখানেই একজন বেফাঁস মন্তব্য করে বলেন, “আপনার ইংরেজি উচ্চারণ ভয়ঙ্কর”। এরপর সবিনয়ে অভিযোগ স্বীকার করে জুন আন্টি লিখলেন, “হ্যাঁ, ঠিকই বলেছেন। বাংলা মিডিয়ামে পড়েছি তো- সরকারি স্কুলে। ক্লাস সিক্স থেকে ইংরেজি ছিল, তাই বোধহয় উচ্চারণটা তেমন শেখা হয়নি। আসলে বাবার পয়সা ছিল না ইংরেজি স্কুলে ভর্তি করার আর মতাদর্শগতভাবে বিশ্বাস করতেন সন্তানকে বাংলা স্কুলে পড়াবেন, তাই সরকারি স্কুলে পড়িয়েছিলেন। তবে কি জানেন তো, ইংরেজি উচ্চারণের সঙ্গে লেখাপড়ার তেমন সম্পর্ক নেই। তাই আটকায়নি। সেন্ট জেভিয়ার্স থেকে অর্থনীতির স্নাতক হয়েছি। তারপর কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর। যতটুকু ইংরেজি জানি তাতে স্নাতকোত্তরে ফার্স্টক্লাস পেতে অসুবিধে হয়নি। এরপর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম ফিল করেছি মানবী বিদ্যাচর্চায়। সেখানেও দ্বিতীয় স্থান পেয়েছিলাম। আপাতত পি এইচ উপরোক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই জমা দিয়েছি। আশা করছি, কিছুদিনের মধ্যেই ডক্টরেট পাব। ও হ্য়াঁ, আমার এম ফিল ও পি এইচ ডি দটোই বাংলায় লেখা। এ রাজ্যে এখনও উচ্চশিক্ষা মাতৃভাষায় সম্ভব। আপনার মাতৃভাষার বুৎপত্তি নিশ্চয় ইংরাজির মতই ভাল।”

সেন্ট জেভিয়ার্স থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতকোত্তর এবং যাদবপুর থেকে মানবীবিদ্যা এমফিল, এরপর পিএইচডি থিসিস পেপার জমা দিয়েছেন। এমফি এবং পিএইচডি পেপার দুইই বাংলায়। ইংরেজি উচ্চারণ নিখুঁত নয়, তা নিয়ে বিশেষ মাথা ব্যথা নেই তাঁর। অভিনেত্রীর মিষ্টিমুখে কড়া উত্তরে প্রচুর মানুষ সমর্থনের পাশাপাশি প্রশংসাও জানিয়েছেন।

Comments
Loading...