এনডিটিভির বিরুদ্ধে নতুন মামলা দায়ের সিবিআইয়ের, বেআইনি লেনদেনের মাধ্যমে বিপুল সম্পত্তি করার অভিযোগ চ্যানেলের বিরুদ্ধে

এনডিটিভি-র প্রতিষ্ঠাতা প্রণয় রায় ও তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়ের বিরুদ্ধে এফডিআই নীতি লঙ্ঘনের অভিযোগে নতুন মামলা দায়ের করল সিবিআই।
নতুন মামলায় দাবি করা হয়েছে, ২০০৪ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত প্রণয় রায়ের টিভি চ্যানেল বিভিন্ন বেআইনি লেনদেনের মাধ্যমে বিপুল সম্পত্তি বাড়িয়েছে। এনডিটিভির প্রতিষ্ঠাতা প্রণয় রায়, রাধিকা রায় ও চ্যানেলের প্রাক্তন সিইও বিক্রম চন্দার নামে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র ও প্রতারণার অভিযোগ এনেছে সিবিআই। এনডিটিভির তরফে এই মামলাকে ‘হাস্যকর’ বলে প্রতিক্রিয়া দেওয়া হয়েছে।
সিবিআইয়ের দায়ের করা এফআইআর অনুযায়ী, ২০০৪ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত অসাধু উপায়ে বিপুল টাকা বাড়ায় এনডিটিভি। হল্যান্ড, ব্রিটেন, দুবাই, মালেয়েশিয়া, মরিশাসের মতো দেশের অন্তত ৩২ টি শেল ফার্মের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল এনডিটিভি লিমিটেডের। সিবিআইয়ের দাবি, এই অস্তিস্বহীন সংস্থা (শেল ফার্ম)গুলির মাধ্যমে বিদেশ থেকে বেনামী সম্পত্তি নিজেদের অ্যাকাউন্টে আনত এনডিটিভি। শুধু তাই নয়, এনডিটিভির মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারি আধিকারিক বিদেশে অর্থ বিনিয়োগ করতেন। এরপর, বিভিন্ন লেয়ারে জটিল লেনদেনের মাধ্যমে সেই অর্থ ভারতে আনা হত। যদিও এফআইআরে কোনও আধিকারিকের নাম নেওয়া হয়নি এবং কেন বিনিয়োগকে অসাধু বলা হচ্ছে তার বিশদ ব্যাখ্যাও দেওয়া হয়নি বলে এনডিটিভি সূত্রে খবর।
এখনও পর্যন্ত তাদের বিরুদ্ধে ওঠা কোনও দুর্নীতির অভিযোগেরই প্রমাণ দিতে পারেনি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা, বলে এনডিটিভি সূত্রে দাবি। সংশ্লিষ্ট নিউজ চ্যানেলের আরও অভিযোগ, এভাবে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। তবে দেশের বিচার ব্যবস্থার ওপর তাদের পূর্ণ আস্থা রয়েছে বলে জানায় এনডিটিভি।
জুন মাসে প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়কে এনডিটিভির শীর্ষপদ ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছিল সেবি। অভিযোগ, ২০০৮ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে দুটি ঋণ প্রদাণকারী সংস্থার সঙ্গে চুক্তির তথ্য শেয়ার বাজারে গোপন করেছিলেন প্রণয় রায় এবং রাধিকা রায়। সেই মামলার আইনি লড়াই চলার মধ্যে কিছুদিন আগে প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়ের বিদেশ যাত্রা আটকে দেয় সিবিআই। মুম্বই বিমানবন্দরে তাঁদের আটকে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

Comments
Loading...