নতুন ‘র’ প্রধান বালাকোট-সার্জিকাল স্ট্রাইকে মোদীর ভরসা সমন্ত গোয়েল, আইবি ডিরেক্টর পদে অরবিন্দ প্রধান

বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক কিংবা সার্জিকাল স্ট্রাইক। তাঁর পরিকল্পনার উপরই নির্ভর করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এবার সেই ভরসার মর্যাদা পেলেন সমন্ত গোয়েল। রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইং বা ‘র’ এর প্রধান করা হল তাঁকে। পাশাপাশি আইবি ডিরেক্টর পদে এলেন অরবিন্দ প্রধান।

প্রাক্তন ‘র’ প্রধান অনিল ধসমানা ও আইবি প্রধান রাজীব জৈন, গত ডিসেম্বরেই দু’জনের ডিরেক্টর পদের মেয়াদ ফুরিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু লোকসভা ভোটের জন্য আরও ৬ মাস তাঁদের কার্যকাল বাড়ানো হয়। এবার সেই সময়সীমাও শেষ। তাই ‘র’ এবং আইবির জন্য নতুন প্রধান নিয়োগ করা ছিল স্রেফ সময়ের অপেক্ষা।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক ও ২০১৬ সালে সার্জিকাল স্ট্রাইকের পরিকল্পনায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অন্যতম ভরসা ছিলেন সমন্ত গোয়েল। সূত্রের খবর, বরফ শীতল মাথায় একের পর এক কঠিন পরিকল্পনা কষতে সিদ্ধহস্ত পাকিস্তান বিশেষজ্ঞ গোয়েল। তাঁর উপর ভরসা করেছিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। মোদীকে নিরাশ করেননি ১৯৮৪ ব্যাচের আইপিএস অফিসার গোয়েল। প্রথমে সার্জিকাল স্ট্রাইক এবং তারপর বালাকোট এয়ার স্ট্রাইক, গোয়েলের পরিকল্পনায় বাজিমাত করে ভারত। ‘র’ প্রধান হিসেবে নিয়োগ করে সেই ভরসারই মর্যাদা দিলেন প্রধানমন্ত্রী বলে মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো বা আইবির স্পেশাল ডিরেক্টর অরবিন্দ কুমারকে করা হল আইবি প্রধান।

সমন্ত গোয়েল ও অরবিন্দ কুমার দু’জনেই ১৯৮৪ ব্যাচের আইপিএস অফিসার।  গোয়েল পঞ্জাব ক্যাডার এবং অরবিন্দ কুমার অসম ক্যাডারের।

গত বছর সিবিআইয়ের প্রাক্তন দুই প্রধান অলোক ভার্মা ও রাকেশ আস্থানা একে অপরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে নজিরবিহীন দ্বন্দ্বে জড়িয়েছিলেন। রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে এফআইআর করেছিলেন তৎকালীন ডিরেক্টর অলোক ভার্মা, সেই এফআইআরে উল্লেখ ছিল সমন্ত গোয়েলের নামও। অন্যদিকে, দেশে মাওবাদী সমস্যা মোকাবিলায় বড় ভূমিকা রয়েছে অরবিন্দ কুমারের। বর্তমানে আইবির স্পেশাল ডিরেক্টর হিসেবে কাশ্মীরে কর্মরত তিনি। সেখানকার পরিস্থিতিও তাঁর হাতের তালুর মতোই চেনা। তাই আইবি প্রধান হিসেবে অরবিন্দ কুমার ভালোই কাজ করবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

Comments are closed.