অসম এনআরসি: কো অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলাকে দ্রুত মধ্য প্রদেশে বদলির নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

অসম এনআরসির কো অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলাকে দ্রুত মধ্য প্রদেশে বদলি করার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। তবে ঠিক কী কারণে ১৯৯৫ ব্যাচের অসম-মেঘালয় ক্যাডারের এই আইএএস অফিসারকে বদলি করা হচ্ছে, তা জানায়নি শীর্ষ আদালত।

সম্প্রতি প্রকাশিত অসম এনআরসিতে ১৯ লক্ষ লোকের নাম বাদ পড়া নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়। অভিযোগ ওঠে ব্যাপক গরমিলের। বিরোধী দলগুলো যখন ভুলে ভরা এনআরসি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছে, ঠিক তখনই অসম এনআরসির বিরোধিতা শুরু হয় অসম বিজেপির তরফেও। অভিযোগের আঙুল ওঠে কো অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলার দিকে। গোজামিল দিয়ে এনআরসি হিসেব মেলানোর অভিযোগে আইআইটি প্রাক্তনী প্রতীক হাজেলার বিরুদ্ধে একাধিক এফআইআরও দায়ের হয় অসমের বিভিন্ন থানায়।

এদিন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের বেঞ্চ জানায়, আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রতীক হাজেলার বদলি সংক্রান্ত তথ্য শীর্ষ আদালতকে জানাতে হবে। পাশাপাশি সরকার যেন অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে হাজেলার নথি তৈরি করে তাঁকে বদলির নির্দেশ জারি করে, তার নির্দেশও দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। স্বভাবতই সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশের প্রেক্ষিতে অসমে শুরু হয়েছে জল্পনা।

এদিন এপ্রসঙ্গে সরকারের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপাল জানতে চান, এই বদলির নির্দেশের কী কোনও বিশেষ কারণ আছে? প্রতিক্রিয়ায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ মন্তব্য করেন, কারণ ছাড়া কোনও নির্দেশ জারি হয় না। যদিও আদালত মৌখিকভাবে কোনও কারণের কথা উল্লেখ করেনি।

Comments
Loading...