এক দেশ, এক কার্ড, প্রস্তাব অমিত শাহের, ২০২১ সালে ডিজিটাল জনগণনা, আসছে অ্যাপ

এক দেশ, এক ভাষার পর, এবার এক দেশ, এক কার্ড। দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে এমনই প্রস্তাব দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বললেন, আধার, পাসপোর্ট, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ভোটার কার্ডকে একটি কার্ডের মধ্যে আনার কথা ভাবা যায়। এতে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি জানালেন, ২০২১ সালের জনগণনা হবে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে।

পাসপোর্ট, আধার এবং ভোটার কার্ডের মতো নাগরিক পরিচয়পত্রকে একটি কার্ডে সংযুক্ত করার প্রস্তাব কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, এই প্রথমবার মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে দেশের জনগণনার তথ্য সংগ্রহ হবে।
সোমবার দিল্লিতে রেজিস্ট্রার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (আরজিআই) এর নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তরের অনুষ্ঠান থেকে অমিত শাহর ঘোষণা, দেশের প্রত্যেক নাগরিকের জন্য মাল্টিপারপাস আইডি কার্ডের কথা ভাবা হচ্ছে। অর্থাৎ, একটি কার্ডের মধ্যেই পাসপোর্ট, আধার, ভোটার কার্ড থেকে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্সের যাবতীয় তথ্য থাকবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এমন একটি ব্যবস্থা থাকা উচিত যাতে কোনও ব্যক্তি মারা গেলে, সেই তথ্য যেন স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট হয়ে যায়। এই প্রেক্ষিতেই ২০২১ সালের জনগণনায় প্রথমবার মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করা হবে বলে জানান অমিত শাহ। বলেন, কাগজ কলম থেকে এবার ডিজিটাল মাধ্যমে জনগণনা করা হবে। অমিত শাহ বলেন, এই প্রথম ডিজিটাল মাধ্যমে জনগণনার জন্য খরচ হবে প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা।
ভারতের জন গণনার ১৪০ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবার একটি অ্যাপের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এতদিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে কর্মচারীদের গণনার তথ্য সংগ্রহ করতে হত। এবার যে যার বাড়িতে বসেই মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে সেই তথ্য সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।
চলতি বছরের মার্চে, কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করে পরবর্তী আদমশুমারির জন্য ২০২১ সালের ১ লা মার্চকে রেফারেন্স তারিখ হিসাবে গণ্য করা হবে। জম্মু ও কাশ্মীর, উত্তরাখণ্ড এবং হিমাচল প্রদেশের তুষার-সীমান্ত অঞ্চলের ক্ষেত্রে রেফারেন্সের তারিখের জন্য ১ লা অক্টোবরকে নির্ধারণ করা হয়েছে।
বর্তমানে ২০২১ সালের আদমশুমারির প্রাক-পরীক্ষা চলছে। যা ১২ ই অগাস্ট থেকে শুরু হয়েছে। চলবে সেপ্টেম্বরের শেষ পর্যন্ত।

Comments
Loading...