কেন্দ্রীয় বাজেটকে বিরোধী নেতারা প্রায় একই সুরে ‘দিশাহীন’ বলে কটাক্ষ করলেন। সরকার পক্ষ এই বাজেটকে ‘ঐতিহাসিক’ আখ্যা দিয়েছে। জবাবে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর মন্তব্য, ঐতিহাসিক তো অবশ্যই। কারণ অর্থমন্ত্রী দীর্ঘ আড়াই ঘণ্টা ধরে ফাঁপা কথা বলে গিয়েছেন। দেশের মূল সমস্যা এখন বেকারত্ব। কিন্তু কেন্দ্রীয় বাজেটে কোনও এমন কোনও দিশা দেখা গেল না যাতে, দেশের যুব সম্প্রদায়ের কর্মসংস্থানের কোনও ব্যবস্থার কথা আছে। শুধু ফাঁপা কথাই শুনলাম, কাজের কথা শোনা যায়নি। বাজেটে সরকারের দিশাহীন অবস্থাই স্পষ্ট হল। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ও বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ পি চিদম্বরমের কটাক্ষ, এই সরকার অর্থনৈতিক সংস্কারে বিশ্বাসই করে না। অর্থমন্ত্রী প্রত্যেকটি অর্থনৈতিক সমীক্ষাকে খারিজ করে দিচ্ছেন।


দিল্লি বিধানসভা ভোটের মুখে দিল্লিবাসীর যেন কিছুই নেই বাজেটে। নির্বাচনের আগেই যেখানে দিল্লিবাসীকে হতাশ করছে বিজেপি সরকার, বিধানসভা ভোটের পর কী প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবে? প্রশ্ন তোলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

এলআইসি সহ একাধিক সরকারি সংস্থার শেয়ার বিক্রি নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছে তৃণমূল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ট্যুইটে লেখেন, যেভাবে একের পর এক রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে তাতে তিনি বিস্মিত ও হতবাক। নারীদিবসে বেকারত্ব ও অর্থনৈতিক মন্দাকে হাতিয়ার করে হাঁড়ি হাতে কলকাতার রাস্তায় মিছিল করবেন তৃণমূলের মহিলা কর্মী ও সমর্থকেরা।
বাজেটের তীব্র সমালোচনা করেছে বামেরা। সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরির কটাক্ষ, শুধু ফাঁপা কথাবার্তা আর স্লোগানই সার। বেকারত্ব, কৃষক আত্মহত্যা, গ্রামীণ আয় বাড়ানোর কোনও দিশা পাওয়া গেল না এই বাজেটে। রাজ্যের সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর কথায়, দীর্ঘ বাজেট ঘোষণা আমজনতার পক্ষে ভীষণ কঠিন।

বাজেট নিয়ে একই কটাক্ষের সুর শোনা গেল সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব থেকে আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবের মুখেও। অখিলেশের অভিযোগ, শিল্পপতি থেকে কৃষক, শ্রমিক, গরিব কারও জন্য এই বাজেট নয়। যুব সম্প্রদায় আরও হতাশ, বাজারে মুদ্রাস্ফীতির তীব্র প্রভাব। এই সময়ে বিজেপির দুর্নীতির কর নেওয়া দরকার। ট্যুইটারে তেজস্বী যাদব লেখেন, বিহার আরও একবার বঞ্চিত হল। কোনও স্পেশ্যাল প্যাকেজই নেই কেন্দ্রের বাজেটে, নেই কোনও নয়া উদ্যোগ। কেবল ফাঁপা বুলি আছে।

অ-বিজেপি শাসিত সব রাজ্যই কেন্দ্রীয় বাজেটের সমালোচনায় মুখর হয়েছে।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা শুরু করেছি সাবস্ক্রিপশন অফার। নিয়মিত আমাদের সমস্ত খবর এসএমএস এবং ই-মেইল এর মাধ্যমে পাওয়ার জন্য দয়া করে সাবস্ক্রাইব করুন। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

India Coronavirus Death Toll