প্রশান্ত কিশোরকে দরজা দেখিয়ে নীতীশ কুমারের মন্তব্য, থাকলে থাকুন, না হলে চলে যান

লাগাতার বিজেপি বিরোধিতার জেরে দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি প্রশান্ত কিশোরকে কার্যত দরজা দেখিয়ে দিলেন জেডিইউ প্রধান, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। মঙ্গলবার তিনি প্রশান্ত কিশোরের (পি কে) উদ্দেশে বলেন, থাকলে থাকুন, না হলে চলে যান। এটা যে পি কের প্রতি নীতীশের চরম বার্তা, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।
মোদী সরকারের নয়া নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির বিরুদ্ধে দলের অবস্থানের বিরুদ্ধে লাগাতার ট্যুইট করে গিয়েছেন ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। কয়েক মাস ধরেই নীতিশ কুমারের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের অবনতির কথা শোনা গিয়েছিল। এবার প্রকাশ্যেই প্রশান্ত কিশোরের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন নীতিশ কুমার। একরকম দল থেকে অপসারণের কথাই জানিয়ে দিলেন নীতিশ কুমার।
মঙ্গলবার দলীয় বৈঠক থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে প্রশান্ত কিশোর সম্পর্কে আক্রমণাত্মক মন্তব্য করতে শোনা যায় জেডিইউ প্রধানকে। তাহলে কি দল ছাড়ছেন পি কে? নীতিশ কুমার জানিয়েছেন, ‘রহেগা তো ঠিক, নেহি রহেগা তো ঠিক’। অর্থাৎ, থাকলেও ভালো, না থাকলেও কোনও ব্যাপার না। তিনি যোগ করেন, কেউ চিঠি লিখলে আমি তার উত্তর দিই, কেউ ট্যুইট করলে তাঁকে ট্যুইটই করতে দিন।
প্রসঙ্গত, লোকসভায় যখন জেডিইউ সাংসদরা নাগরিকত্ব বিলের সমর্থনে ভোট দিয়েছেন, তখন ট্যুইটে মোদী সরকারের এই বিলের তীব্র বিরোধিতা করেন দলেরই দ্বিতীয় প্রধান ব্যক্তি প্রশান্ত কিশোর। তাঁর ট্যুইট বার্তায় এমনও বলা হয়, মোদী সরকারের এনআরসি ও সিএএ বিহারে প্রয়োগ করা হবে না। মূলত এ নিয়েই বিহারে বিজেপির জোটসঙ্গী জেডিইউ- র অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয় প্রশান্ত কিশোরের। সেই সূত্রে ধরেই মঙ্গলবার তাঁকে খোঁচা দেন নীতিশ কুমার। তিনি বলেন, অমিত শাহের কথাতেই প্রশান্ত কিশোর কে দলে নিয়েছিলেন। এখন হয়তো অন্যকিছু ভাবছেন প্রশান্ত কিশোর। দলের আর এক নেতা পবন বর্মা সম্প্রতি বিজেপির সঙ্গে দিল্লির ভোটে জোট করার বিরুদ্ধে চিঠি দেন মুখ্যমন্ত্রীকে। দিন তিনেক আগে দ্বারভাঙ্গার হায়াঘাটের বিধায়ক অমনাথ গামী বলেন, নীতীশ কুমার অত্যন্ত ক্ষমতালোভী। এসব নিয়ে রীতিমতো জেরবার মুখ্যমন্ত্রী। আর কয়েক মাস পরেই বিহার বিধানসভার ভোট।
জেডিইউ-র সহ সভাপতির পদে থেকেও ভোটকুশলী হিসেবে মমতা ব্যানার্জির দলের হয়ে কাজ করছেন পিকে। দিল্লি বিধানসভা ভোটে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের নির্বাচনী প্রচার কৌশলেও রয়েছেন তিনি। যা অস্বস্তি বাড়াচ্ছল বিজেপির জোটসঙ্গী দলের। সেখান থেকেই একরকম অলিখিতভাবে প্রশান্ত কিশোরকে দল থেকে দরজা দেখালেন নীতিশ কুমার।

Comments
Loading...