ব্রিগেড সমাবেশকে সমর্থন জানিয়ে মমতাকে চিঠি দিলেন রাহুল

কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে বিজেপি বিরোধী দলগুলির মহা-সমাবেশের আগে শুভেচ্ছে জানিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি পাঠালেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। আগামী লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে কোণঠাসা করতে বদ্ধপরিকর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সভায় আসতে না পারলেও, এই জোট সমাবেশকে যে কংগ্রেস বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে তা বুঝিয়ে দিলেন রাহুল গান্ধী। ‘দিদি’কে চিঠি দিয়ে ১৯শে জানুয়ারির সমাবেশের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানালেন রাহুল।

এই চিঠিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে ‘দিদি’ বলে সম্বোধন করেন রাহুল। তিনি লিখেছেন, মমতাদির সভার প্রতি বিশেষ সমর্থন জানাচ্ছি। তাঁর আশা সব বিজেপি বিরোধী দল একত্রিত হয়ে, বিজেপিকে শক্তিশালী বার্তা দেবে। রাহুল লিখেছেন, জাতীয়তাবাদ এবং উন্নয়নকে রক্ষা করতে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াই শেষ কথা। আর বিজেপি সেই ধর্মনিরপেক্ষতাকে ধ্বংস করতে চাইছে। এই জোট সফল করে বিজেপির এই অপচেষ্টা রুখে দিতে হবে।
পাশাপাশি, ওই চিঠিতে রাহুল লিখেছেন, মোদী সরকারের প্রতি মানুষের আক্রোশ বাড়ছে, বিশেষ করে যুব সমাজের যাঁরা মোদীর মিথ্যে প্রতিশ্রুতিতে মজেছিলেন, তাঁদের ভুল ভেঙেছে বলে দাবি করেছেন রাহুল। ধর্ম, অর্থনৈতিক অবস্থা, সামাজিক প্রতিষ্ঠা ইত্যাদি সব ভেদাভেদ ভুলে প্রত্যেক ভারতীয় মোদী সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে বলে আশাবাদী রাহুল গান্ধী।
প্রসঙ্গত, কংগ্রেসের তরফ থেকে ১৯ তারিখের সভায় রাহুল বা সোনিয়া গান্ধী উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন। কংগ্রেসের হয়ে সভায় আসছেন মল্লিকার্জুন খাড়গে।
এছাড়া বিএসপি নেত্রী মায়াবতী না আসতে পারায় তাঁর জায়গায় সতীশ মিশ্রকে পাঠাচ্ছেন ১৯ শের ব্রিগেডে। দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবেগৌড়া, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল, অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদব, জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা, এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার, লালুর পুত্র তেজস্বী যাদব, তামিলনাড়ুর স্ট্যালিন, জিগনেশ মেবানিসহ বিজেপি বিরোধী প্রায় অধিকাংশ নেতারই উপস্থিত থাকার কথা এই ব্রিগেডে।

Comments
Loading...