‘দেশের প্রতিষ্ঠানগুলিকে আক্রমণ করছেন মোদী’, মমতার পাশে রাহুলসহ প্রায় সব বিরোধী দল

সিবিআই ইস্যুতে কেন্দ্র ও রাজ্য বেনজির সংঘাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়ালেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীসহ দেশের প্রায় সবকটি বিরোধী দল। রবিবার রাতে মেট্রো চ্যানেলে ধর্নায় বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই পদক্ষেপকে সমর্থন জানিয়ে রাহুল গান্ধী সোমবার ট্যুইট করেন, মমতার সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তাঁর কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে চলার অঙ্গীকার করেছেন রাহুল গান্ধী। পাশাপাশি, তাঁর অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গের বর্তমান অবস্থা প্রমাণ করছে, দেশের প্রতিষ্ঠানগুলিকে কীভাবে মিস্টার মোদী ও বিজেপি আক্রমণ করছেন।
রাহুল গান্ধীর পাশাপাশি দেশের প্রথম সারির রাজনৈতিক নেতারা মমতার পাশে দাঁড়িয়েছেন। জম্ম-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়ে ট্যুইট করেন, সীমাহীনভাবে সিবিআইকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করছে মোদী সরকার।
সমাজবাদী পার্টি প্রধান অখিলেশ যাদব সিবিআইকে বিজেপির ‘নির্বাচনী এজেন্ট’ বলে তোপ দেগেছেন। তিনি ট্যুইটে লেখেন, বিজেপি যে কোনও উপায়ে ক্ষমতায় টিকে থাকতে বদ্ধপরিকর। তাই ভয় পেয়ে, সিবিআইকে ‘ইলেকশন এজেন্ট’ হিসেবে ব্যবহার করছে তারা। বিজেপির এই ‘অসাংবিধানিকভাবে’ কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থাকে ব্যবহার করা এবার বন্ধ হওয়া উচিত বলে ট্যুইটে লেখেন অখিলেশ যাদব। তাঁর এই ট্যুইটের পরিপ্রেক্ষিতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল ট্যুইটে লেখেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। মোদী ও অমিত জুটি মিলে অসাংবিধানিক কাজ করছে ক্ষমতার জোরে।
আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবও মমতার পাশে দাঁড়িয়ে বিজেপির তীব্র সমালোচনা করেছেন। বিজেপি সরকার বিরোধীদের আটকাতে ‘বিষাক্ত ও পৈশাচিক’ পন্থা অবলম্বন করেছে বলে তোপ দাগেন তিনি।
ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবেগৌড়া সংবাদসংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, সিবিআই -এর এতদিনে ঘুম ভেঙে মনে পড়ল তদন্ত করতে হবে। এই ঘটনা থেকে পরিষ্কার, লোকসভা ভোটের আগে সিবিআইকে ব্যবহার করছে কেন্দ্রীয় সরকার।
শিবসেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত মন্তব্য করেছেন, পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে মুখ্যমন্ত্রীর ধরনায় বসা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে এই ঘটনা সিবিআই বনাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় না কী বিজেপি বনাম মুখ্যমন্ত্রী তা এখনও পরিষ্কার নয়।

Comments
Loading...