রাজীব ও লক্ষ্মীরতন বিজেপিতে? অমিত মালব্যের ট্যুইটে জল্পনা

হাওড়ার একাধিক তৃণমূল নেতা কি বিজেপিতে

বিধানসভা ভোট যত এগোচ্ছে, ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে পদত্যাগ ও দলবদলের হিড়িক। মঙ্গলবার মন্ত্রিত্ব থেকে লক্ষ্মীরতন শুক্লার ইস্তফা এবং মন্ত্রিসভার বৈঠকে রাজীব ব্যানার্জির অনুপস্থিতি নিয়ে খোঁচা দিলেন বিজেপি আইটি সেলের প্রধান তথা বাংলায় বিজেপির সহ পর্যবেক্ষক অমিত মালব্য। হাওড়ার দুই বিধায়ক রাজীব ও লক্ষ্মীরতনের বিজেপি যোগদানের জল্পনা উস্কে দিয়েছেন তিনি।
ঠিক কী লিখেছেন অমিত ওই ট্যুইটে?

লক্ষ্মীরতন শুক্লা ক্রীড়া মন্ত্রিত্ব ছাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ট্যুইটারে অমিত মালব্য লেখেন, তৃণমূলে ভাঙন অব্যাহত। লক্ষ্মীরতন শুক্লা কেবল মন্ত্রিত্ব থেকেই ইস্তফা দেননি হাওড়া জেলা সভাপতির পদও ছেড়ে দিয়েছেন।
এর মধ্যে মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জিও তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জির সঙ্গে বৈঠক এড়িয়ে গিয়েছেন।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সকালে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জির সঙ্গে বৈঠক ছিল রাজীবের। কিন্তু সেই বৈঠক এড়িয়ে যান রাজীব ব্যানার্জি। এরপর বিকেলে মন্ত্রিসভার বৈঠকেও অনুপস্থিত ছিলেন তিনি। এ নিয়ে টানা চারবার ক্যাবিনেট মিটিংয়ে থাকলেন না তিনি।
অন্যদিকে লক্ষ্মীরতন শুক্লা এখনই অন্য দলে যাচ্ছেন কি না, তা স্পষ্ট নয়৷ মন্ত্রিত্ব এবং দলের জেলা সভাপতির পদ ছাড়লেও বিধায়ক পদ ছাড়ছেন না লক্ষ্মী৷ কিন্তু উত্তর হাওড়ার বিধায়ক লক্ষ্মীকে বেশ কিছু দিন ধরেই দলীয় কর্মসূচিতে দেখা যায়নি। ইস্তফা দিয়ে দলের এক শ্রেণির নেতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। জানান, কাজ করতে পারছিলেন না।
তৃণমূলের অন্দরের খবর, হাওড়ার ডোমজুড়ের বিধায়কের রাজীব ব্যানার্জির মতোই উত্তর হাওড়ার বিধায়ক লক্ষ্মীরতন শুক্লার সঙ্গে হাওড়া জেলার চেয়ারম্যান তথা মন্ত্রী অরূপ রায়ের দ্বন্দ্ব ছিল৷
এই প্রেক্ষিতে ‘বেসুরো’ রাজীবের মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুপস্থিতি এবং তাঁর সাম্প্রতিক কিছু মন্তব্য অন্যদিকে লক্ষ্মীর পদত্যাগ এবং অমিত মালব্যের ইঙ্গিতবাহী ট্যুইট, সবকিছু মিলিয়ে বিক্ষুব্ধ দুই তৃণমূলির বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা তীব্র হচ্ছে। এদিকে চলতি মাসেই ফের রাজ্যে আসার কথা রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের।

Comments
Loading...