দিল্লির পুলিশ কমিশনার হওয়ার দৌড়ে ঘুষ-কাণ্ডে অভিযুক্ত সিবিআইয়ের প্রাক্তন কর্তা রাকেশ আস্থানা?

দিল্লির পুলিশ কমিশনার হওয়ার দৌড়ে প্রথম সারিতে সিবিআই-র বিতর্কিত প্রাক্তন স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা। ২০১৮ সালে সিবিআইয়ের তৎকালীন প্রধান অলোক ভার্মা ও ডেপুটি ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানা একে অন্যের বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ এনে নজিরবিহীন সংঘাতে জড়িয়েছিলেন। যার ফলে রাতারাতি তাঁদের ছুটিতে পাঠিয়ে নতুন সিবিআই ডিরেক্টর নিয়োগ করেছিল মোদী সরকার। রাকেশ আস্থানার বিরুদ্ধে সেই দুর্নীতি মামলা এখনও ঝুলে রয়েছে। তিনিই দিল্লির পুলিশ কমিশনার হওয়ার দৌড়ে একেবারে প্রথমে রয়েছেন। পুলিশ কমিশনার পদে রাকেশ আস্থানার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী পুদুচেরির ডিজিপি বালাজী শ্রীবাস্তব। জানুয়ারিতেই দিল্লি পুলিশ কমিশনারের পদ থেকে অবসর নিচ্ছেন অমূল্য পট্টনায়েক। প্রথমে শোনা যাচ্ছিল, দিল্লি বিধানসভা ভোটকে মাথায় রেখে পট্টনায়েকের কার্যকালের মেয়াদ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হবে। পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে নতুম পুলিশ কমিশনার নিয়োগ করছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক।
আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দিল্লি বিধানসভার ভোট। নির্বাচন বিধি চালু হয়ে গেলে নির্বাচন কমিশনারের সম্মতি ছাড়া বদলি বা নতুন নিয়োগ সম্ভব নয়। সূত্রের খবর, তাই তড়িঘড়ি দিল্লি পুলিশ কমিশনারের পদ পূরণ করতে চাইছে অমিত শাহের মন্ত্রক। অন্য একটি সূত্র অবশ্য দাবি করছে, দিল্লি পুলিশ কমিশনার হিসেবে পট্টনায়েককেই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত রেখে দেওয়া হবে। একমাস পর নতুন কমিশনার নিয়োগ করবে মন্ত্রক। তবে তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, ১৯৮৪ ব্যাচের গুজরাত ক্যাডার অফিসার আস্থানা, যাঁর বিরুদ্ধে এখন ছ’টি দুর্নীতি মামলা ঝুলে আছে, তাঁকেই দিল্লি পুলিশ কমিশনারের অন্যতম মুখ হিসেবে তুলে আনা হচ্ছে।
বর্তমানে বিমানবন্দর ও বিমান চলাচলের নিরাপত্তা দেখভালের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিসিএএসের শীর্ষপদে রয়েছেন আস্থানা। মোদী ও অমিত শাহ দু’জনেরই ঘনিষ্ঠ এই অফিসারকে ২০১৬ সালে বহু সিনিয়র অফিসারকে ডিঙিয়ে কেন্দ্রীয় তদন্ত বাহিনীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পদে বসানো হয়। সিবিআই ডেপুটি ডিরেক্টর হিসেবে ২০০২ সালে গোধরায় সবরমতী এক্সপ্রেসে আগুন লাগানো-সহ বহু হাই প্রোফাইল মামলার তদন্তের দায়িত্বে ছিলেন আস্থানা। পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় আরজেডি প্রধান লালু প্রসাদ যাদবকে গ্রেফতারও করেছিলেন তিনি। সেই আস্থানাই জড়িয়ে পড়েন ছ’টি দুর্নীতি মামলায়। যার মধ্যে স্টারলিং বায়োটেক মামলা, সাংবাদিক উপেন্দ্র রাইকে গ্রেফতার করার প্রেক্ষিতে দুটি মামলাও রয়েছে। সম্প্রতি আস্থানার বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতি মামলায় দ্রুত রিপোর্ট জমা দেওয়ার জন্য সিবিআইকে নির্দেশ দেয় দিল্লি হাইকোর্ট। যদিও সিবিআই তদন্তের প্রয়োজনে আরও সময় চেয়ে নেয় আদালতের কাছে।

Comments
Loading...