করোনার ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছি! দাবি রামদেবের পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের সিইও বালাকৃষ্ণের

বিশ্বজুড়ে চলছে করোনা প্রতিষেধকের খোঁজ ও গবেষণা। এর মধ্যে বড় চমক দিয়ে যোগগুরু রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি আয়ুর্বেদ ঘোষণা করল, এই মারণ ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করে ফেলেছে তারা! শুধু তাই নয়, পাঁচ থেকে ১৪ দিনের মধ্যেই করোনা রোগীকে সুস্থ করে তুলবে তাদের আয়ুর্বেদ ওষুধ! এমনই দাবি করলেন পতঞ্জলির সহ প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও আচার্য বালাকৃষ্ণ।
শনিবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া তাঁর এই দাবি ঘিরে হইচই শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। সংবাদসংস্থা এএনআইকে বালাকৃষ্ণ জানান, করোনাভাইরাস মহামারির আকার নেওয়ার সময় থেকেই বিজ্ঞানীদের একটি দল গঠন করেন তাঁরা। সেই গবেষণায় প্রথম সিমুলেশন করা হয় এবং এমন সব যৌগগুলিকে চিহ্নিত করা হয়, যেগুলি করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারবে। আর দেহে ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে পারবে। তারপর ১০০ জন করোনা সংক্রমিত রোগীর ওপর ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালান পতঞ্জলির গবেষকরা। দেখা যায়, ৫ থেকে ১৪ দিনের মধ্যে রোগী সেরে উঠেছেন। তাঁর নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে। ট্রায়ালে ১০০ শতাংশ সুফল পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি করেন আচার্য বালাকৃষ্ণ। জানান, আয়ুর্বেদ চিকিৎসার মাধ্যমে করোনা সারানো যায়। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই তার প্রমাণ প্রকাশ করা হবে।
সারা বিশ্বে করোনাভাইরাস প্রতিষেধক তৈরির চেষ্টা চলছে। এখন ১০০ র বেশি সংস্থার করোনা প্রতিষেধক তৈরির কাজ বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে। যারা হিউম্যান ট্রায়ালের দৌড়ে অনেকটা এগিয়েছে বলে খবর, তাদের মধ্যে কয়েকটি নাম হল, অ্যাস্টাজেনেকা, ফিজার, বায়োএনটেক, জনসন অ্যান্ড জনসন, মার্ক, মডার্না, সানোফি ইত্যাদি। সেই সময়ে দাঁড়িয়ে রামদেবের সংস্থা করোনা প্রতিষেধক আবিষ্কারের দাবি ঘিরে হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে। যদিও পতঞ্জলির এই দাবি নিয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক কিংবা আইসিএমআর।

Comments
Loading...