ভারাভারা রাওয়ের জীবন বিপন্ন, দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করুন, মহারাষ্ট্র সরকারকে আবেদন রোমিলা থাপার, প্রভাত পট্টনায়কদের

গুরুতর অসুস্থ কবি-সমাজকর্মী ভারভারা রাও। অবিলম্বে জেল থেকে তাঁর মুক্তির দাবি জানিয়েছে পরিবার। এবার ৮১ বছরের কবি ও সমাজকর্মীর চিকিৎসার দাবি জানালেন রোমিলা থাপার, প্রভাত পট্টনায়করা।

এলগার পরিষদ মামলায় জেলবন্দি ভারাভারা রাওয়ের চিকিৎসার জন্য তাঁকে দ্রুত জে জে হাসপাতালে স্থানান্তরের আবেদন জানিয়ে রবিবার মহারাষ্ট্র সরকার ও ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এনআইএ) কে আলাদা আলাদা চিঠি পাঠান ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার, প্রভাত পট্টনায়েক, দেবকী জৈন, মাজা দারুওয়ালা ও সতীশ দেশপান্ডেরা। এর আগে তাঁরা ভারাভারা রাওয়ের জামিনের জন্য সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন।

২০১৮ সালে ভীমা কোরেগাঁও মামলায় মানবাধিকার কর্মী সুধা ভরদ্বাজ, ভার্নন গঞ্জালভেস, অরুন ফেরেইরা এবং গৌতম নওলাখার সঙ্গে গ্রেফতার করা হয়েছিল কবি ভারাভারা রাওকে। ২০১৮ সাল থেকে জেলে বন্দি আছেন ৮১ বছরের কবি।

বয়সের কারণেই করোনা সংক্রমণের হাইরিস্ক ক্যাটেগরিতে রয়েছেন ভারাভারা রাও। কিছুদিন আগে জেলে অজ্ঞান হয়ে পড়ায় তাঁকে জে জে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তবে কয়েক দিন রাখার পর গত ২৮ জুলাই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ফের তাঁর জায়গা হয় নভি মুম্বইয়ের তালোজা জেলে। গত শনিবার তাঁর আইনজীবী ও মেয়েকে ফোন করে ভারাভারা রাওয়ের অসুস্থতার খবর দেওয়া হয়। এরপর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী কিষণ রেড্ডি ও তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের কাছে তাঁর দ্রুত মুক্তির আবেদন জানান ভারভারা রাওয়ের পরিবার। করোনা পরিস্থিতিতে তাঁর স্বাস্থ্যের কথা বিচার করে জামিনে মুক্তি দেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছিল। কিন্তু গত ২৭ জুন সেই আবেদন খারিজ করে দেয় বিশেষ আদালত। ভারাভারা রাওয়ের স্ত্রী হেমলতার অভিযোগ, রাষ্ট্র চাইছে তাঁকে জেলের মধ্যেই হত্যা করতে।

জানা গিয়েছে, গত ১১ জুলাই টেলিফোনে ভারভারা রাওয়ের সঙ্গে কথা হয় পরিবারের। হৃদরোগ, আলসার, উচ্চ রক্তচাপজনিত একাধিক সমস্যা আগেই রয়েছে তাঁর। এর পাশাপাশি সে দিন তাঁর কথায় কিছু অসংলগ্নতা খুঁজে পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি পরিবারের। তিনি হ্যালুশিনেশনে চলে যাচ্ছেন বলে মনে করছে কবির পরিবার। কারণ, টেলিফোনে বহু বছর আগে মৃত বাবা-মায়ের শেষকৃত্যের কথা বলেছেন ভারাভারা রাও।

এই পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্র সরকার ও এনআইএ কে চিঠি দিয়ে ভারাভারা রাওয়ের চিকিৎসার আবেদন জানালেন রমিলা থাপার, প্রভাত পট্টনায়কের মতো ব্যক্তিত্বরা। সেই আবেদনে কি আদৌ কাজ হবে, মুক্তি পাবেন অশীতিপর ভারাভারা রাও, এটা এখন সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।

Comments
Loading...