করোনার মধ্যে NEET-JEE সহ একাধিক প্রবেশিকা পরীক্ষা, পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ এসএফআইয়ের

NEET-JEE পরীক্ষা নিয়ে টানাপোড়েন অব্যাহত। এবার অতিমারি পরিস্থিতিতে পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করল এসএফআই। বিবৃতি জারি করে তাদের দাবি, এই অতিমারি পরিস্থিতিতে এনইইটির পাশাপাশি ডিইউআইটি, আইসিএআর, এমবিএ এর প্রবেশিকা পরীক্ষা ওপেনমেট, পিএইচডির প্রবেশিকার মতো যে পরীক্ষাগুলি নেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে তাতে পরীক্ষার্থীদের সুরক্ষার দিক বিবেচনা করা হয়নি। এতে ছাত্রছাত্রীদের সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পাবে বলে অভিযোগ সিপিএমের ছাত্র সংগঠনের।

ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন এবং মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের কাছে এসএফআইয়ের প্রেসিডেন্ট ভিপি সানু ও জেনারেল সেক্রেটারি ময়ূখ বিশ্বাসের আর্জি, পড়ুয়া স্বার্থে এমন একটি পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়া হোক যাতে কোনও শিক্ষার্থী শিক্ষা অর্জনের ক্ষেত্রে অসুবিধের মুখোমখি না হন।

এসএফআই তাদের বিবৃতিতে লিখেছে, পরীক্ষাকেন্দ্রে মুখে মাস্ক লাগিয়ে, হাতে স্যানিটাইজার দেওয়া সহ পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কর্তৃপক্ষ একাধিক পদক্ষেপ করলেও এর মধ্যে মৃদু করোনা সংক্রমিত রোগী থাকলে তখন কী হবে? তাদের আরও অভিযোগ, সম্প্রতি করোনার সংক্রমিত হওয়া পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেবেন কিনা অথবা তাদের জন্য অন্য কোনও বিশেষ ব্যবস্থা করা হচ্ছে কিনা এ নিয়ে নোটিসে কিছু জানায়নি ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি (NTA)। পাশাপাশি নির্দিষ্ট কয়েকটি পরীক্ষাকেন্দ্রে যে লক্ষ লক্ষ পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিতে আসবেন তাদের অনেকেই রেড জোনে রয়েছেন। তাঁরা যাতায়াত করবেন কীভাবে?

যদিও গত মঙ্গলবার প্রেস বিবৃতি জারি করে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি জানিয়ে দেয় সেপ্টেম্বরেই হবে পরীক্ষা। আর স্থগিত করার কোনও অবকাশ নেই। একই কথা জানান কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল।

Comments
Loading...