কী করবেন শুভেন্দু অধিকারী? কালীপুজোর দিন ঝাড়গ্রামে তির-ধনুক, কুঠার হাতে কাকে বার্তা?

শুভেন্দু অধিকারীর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা অব্যাহত। কী করবেন তিনি, তা নিয়ে তীব্র জল্পনা তৃণমূলের অন্দরে। এরই মধ্যে লাগাতার কর্মসূচি নিয়ে চলেছেন তিনি। শনিবার কালীপুজোর দিন ঝাড়গ্রামের গোপীবল্লভপুরে উপস্থিত ছিলেন তিনি।

সাধারণ মানুষের মধ্যে বস্ত্রদান করেন রাজ্যের পরিবহণ, সেচ ও জলসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী।

আদিবাসীদের চিরাচরিত রীতি মনে শুভেন্দুর হাতে তির-ধনুক ও কুঠার তুলে দেন স্থানীয় মানুষ। কয়েক দিন ধরেই শুভেন্দুকে নিয়ে জল্পনা ছড়িয়েছে তৃণমূলের অন্দরে। কী করবেন তিনি, প্রশ্ন উঠছে।

শুভেন্দুর সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্কের বরফ গলাতে কয়েকদিন আগেই কাঁথির অধিকারী বাড়িতে গিয়েছিলেন প্রশান্ত কিশোর। কিন্তু শুভেন্দুর সঙ্গে তাঁর দেখা হয়নি।সূত্রের খবর, দলের সঙ্গে তাঁর টানাপড়েন অব্যাহত। তিনি কী করছেন সেদিকে তাকিয়ে তৃণমূল নেতৃত্ব। পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূল নেতা ও বিধায়ক অখিল গিরি শনিবারই জানিয়েছেন, শুভেন্দুকে অবস্থার পরিষ্কার করতে এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তারই মধ্যে নিজের কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

শুভেন্দু অধিকারী শিবিরের ব্যাখ্যা, কয়েকদিনের মধ্যেই তিনি তাঁর অবস্থান পরিষ্কার করবেন। ১০ নভেম্বর নন্দীগ্রামের সমাবেশ থেকে দলকে বার্তা দিয়ে শুভেন্দু জানিয়েছিলেন, লড়াইয়ের মঞ্চে দেখা হবে, রাজনৈতিক লড়াইয়ে দেখা হবে। কালীপুজোর দিন জঙ্গলমহলে ফের কর্মসূচি নিয়ে তিনি ফের দলকেই বার্তা দিলেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

 

 

Comments
Loading...