সুব্রহ্মণ্যম স্বামী: ২ বছর বন্ধ রেখে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নামে খোলা হোক জেএনইউ

দু’বছরের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হোক জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়। তারপর চাচা নেহরুর নাম বদলে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নামকরণ করে শুরু হোক পঠন-পাঠন। এমনই পরামর্শ দিলেন বিজেপির রাজ্যসভা সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী।
জেএনইউর পড়ুয়াদের উপর বরাবরই বৈরিতা পোষণ করে থাকেন বিজেপি নেতারা। কখনও পড়ুয়াদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে মধুচক্র চালানো, আবার কখনও তাঁদের রাষ্ট্রদ্রোহী বলে দাগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন তাঁরা। এবার বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর নিশানায় জেএনইউ  ও তার ছাত্রছাত্রীরা।
মঙ্গলবার দিল্লির এক অনুষ্ঠানে জেএনইউ-র পড়ুয়াদের আক্রমণ করেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। তাঁর প্রস্তাব, সমাজবিরোধী উপাদান দূর করতে দু’বছর বন্ধ রাখা হোক জেএনইউ। এই সময়ে পড়ুয়াদের অন্য কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানান্তরিত করা হোক। এরপর জওহরলাল নেহরুর নাম বদলে সুভাষচন্দ্র বসু বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে নতুন যাত্রা শুরু করা হোক। স্বামী বলেন, জওহরলাল নেহরুর নামে অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। নেহরু ছিলেন সমাজবাদী ও ছদ্ম-ধর্মনিরপেক্ষবাদী। আর সুভাষচন্দ্র বসু ছিলেন জাতীয়তাবাদী। তাই জেএনইউ-র নাম বদলে সুভাষচন্দ্র বসু বিশ্ববিদ্যালয় রাখা হলে ওখানকার পড়ুয়াদের ওপর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। তাঁর অভিযোগ, জেএনইউ ক্যাম্পাস বামপন্থী ও দেশদ্রোহী উপাদানে ভরপুর। তাই তিনি মনে করেন, বছর দুয়েক বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে রাখা অত্যন্ত জরুরি।
এক মাস ধরে হস্টেলের বর্ধিত ফি প্রত্যাহারের দাবিতে প্রবল আন্দোলন করছেন জেএনইউ পড়ুয়ারা। তাঁদের এই আন্দোলনের প্রেক্ষিতে আইআইটি বম্বে, দিল্লি এইমসেও শুরু হয়েছে ছাত্র আন্দোলন। পড়ুয়াদের অভিযোগ, শিক্ষার বেসরকারিকরণ করে গরিব ও মেধাবীদের কাছ থেকে শিক্ষার অধিকার ছিনিয়ে নিতে চাইছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। এই সময়ে বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপি সাংসদ স্বামীর গলায়।

Comments
Loading...