অযোধ্যা রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশনে যাচ্ছে না সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড, ৫ একর জমি নিয়ে আলোচনা চলছে

অযোধ্যা জমি বিতর্ক মামলায় গত ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের রায়ে খুশি হয়নি মুসলিম পক্ষ। সুপ্রিম কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে রায় পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করা হবে বলে জানিয়েছিল সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড। মঙ্গলবার সেই বোর্ডই সিদ্ধান্ত নিল, তারা রিভিউ পিটিশনে যাবে না। শীর্ষ আদালতের নির্দেশমতো মসজিদের জন্য ৫ একর জমি গ্রহণ করা হবে কি না, তা নিয়ে এখনই কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানান বোর্ডের চেয়ারম্যান জুফার ফারুকি।
মঙ্গলবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ফারুকি জানিয়েছেন, বাবরি মসজিদ মামলায় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের আট সদস্যের মধ্যে সাতজনের উপস্থিতিতে বৈঠক হয় এদিন। এর মধ্যে ছ’জনই রিভিউ পিটিশনের বিপক্ষে মত দিয়েছেন। কেবলমাত্র আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক খান এই বিষয়ে ভিন্নমত জানান। তিনি রিভিউ পিটিশনের পক্ষে মত দেন।
অযোধ্যা-বাবরি জমি বিতর্ক মামলায় মুসলিম পক্ষের প্রধান মামলাকারী হল সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড।
এদিনের বৈঠকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশমাফিক মসজিদের জন্য পাঁচ একর জমি তাঁরা নেবেন কি না তা নিয়েও আলোচনা করেন সদস্যরা। তবে এ ব্যাপারে এখনই কোনও দৃঢ় সিদ্ধান্তে তাঁরা পৌঁছতে পারেননি বলে জানিয়েছেন ফারুকি। তিনি বলেন, শরিয়ত অনুসারে এই জমি নেওয়া ঠিক হবে কি না, এ ব্যাপারে সিদ্ধান্তের জন্য আরও সময় চেয়েছেন বোর্ডের সদস্যরা।
গত ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যার বিতর্কিত স্থানে রামমন্দির তৈরিতে সায় দিয়েছে। পাশাপাশি, মসজিদ তৈরির জন্য কেন্দ্রকে ৫ একর জমি দিতে বলা হয়েছে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে। যদিও এই রায়ের বিপক্ষে তাদের অবস্থান জানিয়েছিল অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড (এআইএমপিএলবি)। ১৯৯২ সালে ধ্বংস হওয়া বাবরি মসজিদের স্থান ছেড়ে অন্যত্র মসজিদ তৈরিতে নিমরাজি হয় তারা। এই অবস্থায় মঙ্গলবার সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডের মিটিংয়ে রিভিউ পিটিশন না করার সিদ্ধান্ত বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Comments
Loading...