গড়বেতায় ফের প্রার্থী Sushanta Ghosh? বিতর্কিত নেতাকে সামনে রেখেই ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া সিপিএম

রামে যাওয়া বাম ভোট ফিরবে?

দলের ভেতরে বাইরে বারবার বিতর্কে জড়িয়েছেন। কিন্তু তাঁর তুমুল জনপ্রিয়তার কাছে কি পিছু হটতে বাধ্য হচ্ছে আলিমুদ্দিন? সূত্রের খবর আসন্ন বিধানসভা ভোটে গড়বেতা থেকে ফের প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চলেছেন সুশান্ত ঘোষ।

বিতর্ক তাঁর চিরসঙ্গী। একইসঙ্গে জনপ্রিয়তাও তাঁকে ছেড়ে যায়নি কখনও। ২০১১ সালে প্রবল মমতা ঝড়ের মুখে দাঁড়িয়ে বিপুল ব্যবধানে জয় ছিনিয়ে এনেছিলেন সুশান্ত ঘোষ। কিন্তু সেই জয়ের পর থেকেই শুরু হাজার বিতর্কের। 

বেনাচাপড়া কঙ্কাল কাণ্ডে দীর্ঘদিন জেলে থাকতে হয়েছিল। তারপর দীর্ঘদিন আদালতের নিষেধাজ্ঞায় ঢুকতে পারেননি পশ্চিম মেদিনীপুর। সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে গড়বেতা ফিরেছেন সুশান্ত ঘোষ। আর তিনি ফিরতেই উজ্জীবিত পশ্চিম মেদিনীপুরের বাম শিবির। 

ঘরে ফিরেই গত ৬ ডিসেম্বর চন্দ্রকোনা রোডের পার্টি অফিসে গিয়ে বসেন সুশান্ত ঘোষ। সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই তাঁকে ঘিরে ধরেন অনুগামীরা। তারপর থেকে জঙ্গলমহলে সিপিএমের কার্যকলাপ বেড়েছে। ১ দশক ধরে বন্ধ হয়ে পড়ে থাকা পার্টি অফিস খুলছে। কেশপুরে সিপিএমের মিছিলে হামলার অভিযোগে বিজেপি অফিস ঘেরাও করেছিলেন প্রায় শ চারেক মহিলা। দখল হয়ে যাওয়া পার্টি অফিস ফেরাতে উদ্যোগ নিচ্ছেন বাম নেতারা। সব মিলিয়ে সুশান্ত ঘোষকে সামনে রেখেই পশ্চিম মেদিনীপুর সহ সংলগ্ন এলাকায় ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে বামেরা। 

সূত্রের খবর গড়বেতা থেকেই তাঁকে আবার প্রার্থী করতে চলেছে আলিমুদ্দিন। বড়ো কোনও ঘটনা না ঘটে গেলে সেই সিদ্ধান্ত বদলের সম্ভাবনা কম। 

সুশান্ত ঘোষ যখন জেল থেকে বেরোন সেই সময় তাঁকে মালা পরিয়ে সংবর্ধনা দিয়েছিল সিপিএম। কিন্তু তারপর থেকে দলের নেতৃত্বের একাংশের সঙ্গে সুশান্ত ঘোষের সমস্যার শুরু। 

২০১৮ সালে TheBengalStory তে ধারাবাহিক ভাবে প্রকাশিত হয় সুশান্ত ঘোষের ডায়েরি। তাতে সিপিএমের বর্তমান নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। যা নিয়ে বিস্তর জল ঘোলা হয়। শৃঙ্খলা কমিশনের সামনে হাজিরা দিতে হয় সুশান্ত ঘোষকে। দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানায় তাঁর নিজের জেলা পশ্চিম মেদিনীপুরের জেলা পার্টি। কমিশনের সামনে সুশান্ত ঘোষ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পার্টি এবং তার সম্পাদক তরুণ রায়ের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেন। কিন্তু সুশান্ত ঘোষকে বহিষ্কার করতে পারেনি আলিমুদ্দিন। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে সুশান্ত ঘোষের তুমুল জনপ্রিয়তার কাছে পিছু হঠে পার্টি। শেষ পর্যন্ত সাময়িক সাসপেন্ড করে দু’কুল বজায় রাখেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্ররা। 

আইন আদালতের হাজার চক্করের পর সদ্য নিজের গ্রামে ফিরেছেন সুশান্ত ঘোষ। আর এসেই দলের কাজ শুরু। 

সব কিছু খতিয়ে দেখে আলিমুদ্দিন সুশান্তর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগানোর বিষয়ে সিলমোহর দিয়েছে। এখনও পর্যন্ত যা খবর তাতে গড়বেতা থেকেই ২১ সালের ভোটে লড়বেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী সুশান্ত ঘোষ। সিপিএমের এক নেতা জানাচ্ছেন, ডাকসাইটে সুশান্ত ঘোষের জনপ্রিয়তা দলের বিভিন্ন সংগঠনেও সাড়া জাগানোর মত। বিতর্ককে অতীতে ঠেলে সংগঠনের কাজে যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন এবং শুরুতেই যেমন সাড়া পাচ্ছেন সুশান্ত ঘোষ, তাতে আশাবাদী হওয়া যায়। ওই নেতার আরও দাবি, নেতৃত্বের অভাবে যে ভোট বাম ছেড়ে রামে পাড়ি দিয়েছিল, সুশান্ত ঘোষ ফেরায় তাঁদেরও ঘর ওয়াপসির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। যা পশ্চিম মেদিনীপুরে নতুন করে অক্সিজেন যোগাচ্ছে ক্ষয়িষ্ণু সিপিএমকে।  

Comments
Loading...