রাষ্ট্রপতি মনোনীত হয়েই রাজ্যসভার ছেড়ে আসা আসনে ফিরলেন স্বপন দাশগুপ্ত, শুভেচ্ছা শুভেন্দুর

তারকেশ্বরে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ানোর পর রাজ্যসভার সাংসদ পদে ইস্তফা দিয়েছিলেন। ভোটে হেরে গিয়েছেন স্বপন দাশগুপ্ত। আবার রাষ্ট্রপতি মনোনীত হিসেবেই রাজ্যসভায় ফিরলেন তিনি। মঙ্গলবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

একুশের ভোটে বাংলায় বিজেপির অন্যতম ভারী মুখ হিসেবে ছিলেন স্বপন। তারকেশ্বর থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও করেন। ২০১৯ লোকসভায় বিপুল লিড সত্ত্বেও জয় পাননি স্বপন দাশগুপ্ত। তৃণমূল প্রার্থীর কাছে হারতে হয় তাঁকে। দলগত ভাবেও বিজেপি বাংলায় কার্যত মুখ থুবড়ে পড়ে। এদিকে রাষ্ট্রপতি মনোনীত রাজ্যসভার সদস্য কোন যুক্তিতে বিজেপির হয়ে ভোটে লড়তে পারেন? তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র এই ইস্যুতে আক্রমণ শানিয়েছিলেন স্বপন ও বিজেপির দিকে। শেষ পর্যন্ত বিধানসভায় লড়তে রাজ্যসভার সাংসদ পদে ইস্তফা দেন স্বপন দাশগুপ্ত। রাষ্ট্রপতি মনোনীত সদস্য হিসেবে রাজ্যসভায় তাঁর মেয়াদ ছিল ২০২২ সাল পর্যন্ত। পুনঃমনোনীত হয়ে তিনি ২০২২ সাল পর্যন্তই সাংসদ থাকতে পারবেন। 

বিরোধীরা প্রশ্ন তুলছে, স্বপন দাশগুপ্ত ইস্তফা দিলেন। তারপর ভোটে হেরে আবার সেই শূন্য আসনেই মনোনীত হয়ে গেলেন কী করে?

স্বপন দাশগুপ্তকে অভিনন্দন জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

বিরোধীদের খোঁচায় বিদ্ধ স্বপন দাশগুপ্ত জানিয়েছেন, তিনি বাঙালি বলেই হয়ত দ্বিতীয়বার মনোনীত হলেন।

Comments
Loading...