নন্দীগ্রামে পাঁশকুড়ার আনিসুরের নাম তুললেন মমতা, কে এই জেলবন্দি নেতা?

পূর্ব মেদিনীপুরের বাম ছাত্র-যুব রাজনীতিতে উজ্জ্বল নাম ছিলেন আনিসুর রহমান তারপর তৃণমূল ঘুরে বিজেপিতে

সোমবার নন্দীগ্রামে মমতা ব্যানার্জির সভার পর রাতারাতি চর্চায় উঠে এসেছে একটি নাম, আনিসুর রহমান। পাঁশকুড়ার এই তরুণ নেতাকে নিয়ে এখন আন্দোলিত পূর্ব মেদিনীপুরের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি। 

কিন্তু কী এমন হল যে রাতারাতি সবার মুখে আনিসুরের নাম? কে এই আনিসুর রহমান? কী সম্পর্ক মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে? 

আনিসুর রহমানকে জানতে হলে আমাদের ফিরে তাকাতে হবে ২০০৭ সালের দিকে।

১০ নভেম্বর ২০০৭ সাল। সিপিএমের অত্যাচারের খবর পেয়ে কলকাতা থেকে নন্দীগ্রামের পথে রওনা দিলেন বিরোধী নেত্রী মমতা। মেচেদা মোড়ের কাছে সিপিএমের অবরোধে আটকে যায় মমতার কনভয়। বহুক্ষণ অপেক্ষা করার পরও অবরোধ না ওঠায় বাধ্য হয়ে কেটিপিপি অতিথি নিবাসে রাতে থাকেন মমতা ব্যানার্জি। 

১১ নভেম্বর ভোরে ফের নন্দীগ্রাম যাওয়ার চেষ্টা করেন তৃণমূল নেত্রী। কিন্তু মমতার কনভয় যেখানেই যায় ঘিরে ধরে শুরু হয় শাসক সিপিএমের অবরোধ। শেষ পর্যন্ত পাঁশকুড়া চলে যায় মমতার কনভয়। কিন্তু পাঁশকুড়াতেও মমতার গাড়ি আটকে পড়ে সিপিএমের অবরোধে। অনেকক্ষণ সেখানেই অপেক্ষা করেন মমতা। সেই সময় আচমকাই সাদা জামা, চোখে গগলস একটি ছেলেকে দেখা যায় মমতার সঙ্গে কথা বলতে। কিছুক্ষণের মধ্যেই যুবকটি একটি বাইক নিয়ে হাজির। মমতা চড়ে বসেন বাইকের পিছনের সিটে। যুবকের সঙ্গীর বাইকে বসেন শোভন চ্যাটার্জি এবং আরও একটি বাইকে মমতার দেহরক্ষী। আল পথ ধরে তমলুকের দিকে রওনা দেন তৎকালীন বিরোধী নেত্রী। সেদিন যার বাইকে তমলুক হাসপাতালে পৌঁছন মমতা, সেই যুবকের নাম আনিসুর রহমান, বাড়ি পাঁশকুড়া।

শুরুতে পূর্ব মেদিনীপুরের বাম ছাত্র-যুব রাজনীতিতে উজ্জ্বল নাম ছিল আনিসুর। কিন্তু পাঁশকুড়ায় একটি নার্সিং হোম তৈরি করা নিয়ে সিপিএমের সঙ্গে বিরোধ হয় বাম যুব নেতা আনিসুরের। আনিসুর তৃণমূলে যোগ দেন। শুরু হয় সিপিএমের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক লড়াই। তারপর ২০১১ সালে পরিবর্তন হয়েছে। রাজ্যে ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল। সমস্যার সূত্রপাতও সেই সময় থেকেই। 

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে পূর্ব মেদিনীপুরে শুভেন্দু ও আনিসুর সমসাময়িক। স্বভাবতই দুই নেতার মধ্যে রেষারেষিও ছিল। অভিযোগ আনিসুর রহমানকে কোণঠাসা করেন শুভেন্দু। ক্রমশ শুভেন্দুর দাপট যত বাড়তে থাকে ততই পিছনের সারিতে চলে যান আনিসুর। দল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেন আনিসুর। সেই সময় একটি মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গত ১৪ মাস তিনি জেলে আছেন। 

পাঁশকুড়ায় কান পাতলে শোনা যায় মূলত আনিসুরকে পথ থেকে সরাতে কোনও চেষ্টাই নাকি বাকি রাখেননি শুভেন্দু। সেই আনিসুরের নাম এবার খোদ মুখ্যমন্ত্রীর মুখে। ঘটনাচক্রে আনিসুরের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী শুভেন্দু অধিকারী এখন বিজেপিতে। 

নন্দীগ্রামের সমাবেশ থেকে মমতা ইঙ্গিত করেন, মিথ্যে মামলায় আনিসুরকে জেলে রাখা হয়েছে। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের প্রশ্ন,  পূর্ব মেদিনীপুরের পরিবর্তিত রাজনৈতিক সমীকরণে শুভেন্দুর শূন্য স্থানে কি এবার আনিসুরকে আনতে চাইছেন তৃণমূল নেত্রী? তাই কি শুভেন্দুর খাসতালুক নন্দীগ্রামে দাঁড়িয়ে তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে মমতার মুখে উঠে এলো আনিসুর রহমানের নাম? মমতা ব্যানার্জি কি আনিসুর কাঁটা দিয়ে শুভেন্দুকে মোকাবিলার নীল নকশা তৈরি করছেন? জল্পনা উস্কে দিয়েছে নন্দীগ্রামের মঞ্চে মমতার মুখে বর্তমানে জেলবন্দী বিজেপি নেতার নাম।

Comments
Loading...