জি মিডিয়ার মানহানি মামলায় মহুয়া মৈত্রকে নোটিস আদালতের, মিটমাটের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান তৃণমূল সাংসদের

জি নিউজ এবং তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Mahua Moitra) সংঘাতে নয়া মোড়। জি মিডিয়ার দায়ের করা মানহানি মামলায় মহুয়াকে নোটিস দিল দিল্লির একটি আদালত। জি নিউজের বিরুদ্ধে মানহানিকর মন্তব্য করার অভিযোগে কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মানহানির মামলা দায়ের করে সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যম। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি।

ঘটনার সূত্রপাত সংসদে মহুয়ার প্রথম বক্তৃতাকে কেন্দ্র করে। জি নিউজ দাবি করে, মহুয়া ফ্যাসিবাদের লক্ষণের কথা বলতে গিয়ে আমেরিকার এক প্রবন্ধ লেখকের ভিন্ন প্রেক্ষিতে বলা কথা হুবহু টুকে দিয়েছেন। যদিও সেই প্রবন্ধের লেখক নিজে সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যমের অভিযোগ খারিজ করেন। জি নিউজের অভিযোগ, মহুয়া মৈত্র এই ঘটনার পরই তাদের প্রতি এই মন্তব্য করেছেন। যাতে সংস্থার মর্যাদাহানি হয়েছে। এরপর আদালতের দ্বারস্থ হয় জি নিউজ। পাল্টা আদালতে যান মহুয়াও।

জি নিউজের দায়ের করা ফৌজদারি মানহানির মামলায় গত শুক্রবার দিল্লির রাউজ অ্যাভেনিউ কোর্ট কমপ্লেক্সের অতিরিক্ত মুখ্য মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিশাল পাহুজা জি মিডিয়ার আইনজীবী বিজয় আগরওয়ালের দাবি মেনে জানান, মহুয়া মৈত্রের (Mahua Moitra) বিরুদ্ধে মামলা চালিয়ে যাওয়ার মত যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে।

মানহানি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ডের সংস্থান রয়েছে। গত বছর ১৭ ডিসেম্বর আদালত ২০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডের বিনিময়ে তৃণমূল সাংসদ মহুয়ার জামিন মঞ্জুর করে। পাশাপাশি, আদালত জিজ্ঞেস করেছিল, মামলায় দুই পক্ষের মধ্যে আদালতের বাইরে মিটমাটের কোনও সম্ভাবনা রয়েছে কিনা। কিন্তু মহুয়া মৈত্র মিটমাটের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন।

এর আগে সংসদে কৃষ্ণনগরের সাংসদের প্রথম বক্তৃতা নিয়ে সংশ্লিষ্ট সংবাদমাধ্যমের সম্প্রচারিত একটি টিভি শো নিয়ে আপত্তি জানিয়ে জি নিউজ এবং তার এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে ফৌজদারি মানহানির মামলা দায়ের করেছিলেন মহুয়া মৈত্র। এই মামলায় গত বছরের ৪ নভেম্বর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছিল আদালত।

 

Comments
Loading...