‘অপারেশন বালাকোটে মৃত্যু হয়েছে ২৫০ জঙ্গির’, আমেদাবাদের সভা থেকে চাঞ্চল্যকর দাবি অমিত শাহের

অপারেশন বালাকোটে ঠিক কত জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে, তার কোনও সরকারি হিসেব এখনও মেলেনি। এই পরিস্থিতিতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ দাবি করে বসলেন, গত ২৬ শে ফেব্রুয়ারি এয়ার স্ট্রাইকে ২৫০ জনেরও বেশি জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে।
ঠিক কত জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে, বা আদৌ হয়েছে কিনা তা নিয়ে বিভ্রান্তি চরমে। কেন্দ্র বা সেনার পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে বিশদ কোনও তথ্য দেওয়া হয়নি। কিন্তু রবিবার আমেদাবাদের একটি সভা থেকে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের দাবি, বায়ুসেনার অপারেশনে ২৫০ জনের বেশি জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে। অমিত শাহই শাসক দলের প্রথম নেতা যিনি জঙ্গি মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে এমন খোলাখুলি মুখ খুললেন। তবে কোথা থেকে তিনি এই খবর পেলেন সেই সূত্রে অবশ্য প্রকাশ্যে জানাননি অমিত শাহ।
আহমেদাবাদের সভায় বিজেপি সভাপতি বলেন, ৪০ জন সিআরপিএফ জওয়ানের মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে আবার ভারতীয় সেনাবাহিনী সার্জিকাল স্ট্রাইক করেছে। আর এজন্য বিজেপি সভাপতি সবটুকু কৃতিত্ব দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেই। তিনি বলেন, পুলওয়ামায় হামলার পর সবাই ভেবেছিল এবার হয়তো কোনও সার্জিকাল স্ট্রাইক করা যাবে না। কিন্তু মোদীর নেতৃত্বে, কেন্দ্রীয় সরকার ১৩ দিনের মাথায় এয়ার স্ট্রাইক করে ২৫০ জনের বেশি জঙ্গিকে মেরেছে। বিজেপি সভাপতির মতে, আমেরিকা ও ইজরায়েলের পর ভারতই তৃতীয় দেশ, যে তার সৈনিকদের হত্যার প্রতিশোধ নিয়েছে। আর এসবের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ইচ্ছাশক্তির  ভূয়সী প্রশংসা করেন অমিত শাহ।
কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব যে জঙ্গি মৃত্যুর সরকারি হিসেব চেয়েছেন, তাকে কটাক্ষ করেন বিজেপি সভাপতি। তিনি বলেন, বিরোধী নেতাদের এই ধরণের মন্তব্য পাকিস্তানের মুখে হাসি ফোটাচ্ছে। নিজেদের বক্তব্যের জন্য তাঁদের লজ্জিত হওয়া উচিত বলে বিরোধীদের তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন অমিত শাহ। তিনি আরও বলেন, যদি ভারতীয় সেনাকে বিরোধীরা সমর্থন করতে না পারেন, তাঁরা অন্তত নীরব থাকুন।
অমিতের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে কংগ্রেস নেতা মণীশ তিওয়ারির পাল্টা ট্যুইট, এয়ার স্ট্রাইককে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করছে বিজেপি।

Comments
Loading...