লাল-হলুদে চূড়ান্ত ষষ্ঠ বিদেশি, স্প্যানিশ জুয়ানের বাঁ-পা স্বপ্ন দেখাচ্ছে ইস্টবেঙ্গলকে

আই লিগ শুরু হতে এখনও ঢের দেরি। তার আগেই বিদেশি কোটা সম্পূর্ণ করে নিল ইস্টবেঙ্গল। বোরহা, কোলাডো, কাসিম এবং মার্তি, চার বিদেশি দলে তো ছিলেনই। পঞ্চম বিদেশি হিসেবে লিগের ম্যাচে স্প্যানিশ স্ট্রাইকার মার্কোসও নেমে পড়েছেন। এবার ষষ্ঠ বিদেশীকেও সই করিয়ে ফেলছে ইস্টবেঙ্গল। স্প্যানিশ অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার জুয়ান মেরা গঞ্জালেজ। আর এই জুয়ানকে ঘিরেই স্বপ্ন দেখা শুরু করেছেন ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা।

স্পোর্টিং গিজনের একাডেমী থেকে উঠে আসা জুয়ানের। তারপর দীর্ঘদিন খেলেছেন গিজনের বি দলে। সেখানে আবার জুয়ানের সতীর্থ ছিলেন গত বছর থেকে ইস্টবেঙ্গলে থাকা স্প্যানিশ উইঙ্গার হাইমে কোলাডো। সেখান থেকে জুয়ান গিয়েছিলেন সেলটা ভিগো বি দলে। সেই সময় সেলটা বি দলের কোচ ছিলেন বর্তমান ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেহান্দ্রো মেনিনডেজ। পুরনো ছাত্রের উপর এবার ভরসা করছেন স্প্যানিশ কোচ।

সেলটা ভিগো থেকে এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডার যোগ দিয়েছিলেন লা লিগার তৃতীয় ডিভিশনের ক্লাব রেসিং ফেরলে। ২০১৭-১৮ মরসুমে স্পেনের এই ক্লাবে একসঙ্গে খেলেছেন জুয়ান এবং মোহনবাগানের স্প্যানিশ মিডফিল্ডার বেইতিয়া। জুয়ানকে নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত বেইতিয়া।

জুয়ান সম্বন্ধে খুব কম তথ্যই আছে। যে ক’টি ভিডিও পাওয়া গেছে, দেখা যাচ্ছে ইস্টবেঙ্গলের নবাগত ফুটবলারের বাঁ পা বেশ ভালো। ফ্রি কিক মারার মুন্সিয়ানা আছে তাঁর। গতিও বেশ ভালো।

ইস্টবেঙ্গল দলের যা ভারসাম্য, তাতে জুয়ানকে বাম প্রান্ত থেকে খেলাবেন আলেজান্দ্রো। জুয়ান-হাইমে-মার্কোস এই ত্রিফলা স্বপ্ন দেখাচ্ছে ইস্টবেঙ্গলকে।

কলকাতা লিগে ইতিমধ্যেই ৪ জন বিদেশী রেজিস্ট্রেশন করে নিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। নবাগত স্প্যানিশ মিডফিল্ডারের লিগের ম্যাচে আর মাঠে নামার সম্ভাবনা নেই। তবু দলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে তাকে দ্রুত কলকাতা নিয়ে আসতে চাইছেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। ইতিমধ্যেই ভারতে আসার ভিসার আবেদন করে ফেলেছেন জুয়ান। ভিসা পেলেই সঙ্গে সঙ্গে তাকে ভারতে আসার টিকিট পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

Comments
Loading...