অভিজিৎ বিনায়ক: বিজেপি চাইলে ওদেরও সাহায্য করতে পারি, কংগ্রেসকে পরামর্শ নিয়ে খেদ নেই

বিজেপি প্রয়োজন মনে করলে আর্থিক নীতি নিয়ে তাদেরও সাহায্য করবেন। ন্যায় প্রকল্প নিয়ে কংগ্রেসকে পরামর্শ দেওয়ার ব্যাপারে কোনও খেদ নেই। নীতি নির্ধারণে সহায়তা করতে গিয়ে রাজনৈতিক দল দেখা ঠিক নয়। বললেন, নোবেলজয়ী বাঙালি অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার রাতে দিল্লি পৌঁছন তিনি। আগামী মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে নোবেলজয়ীর সাক্ষাতের কথা রয়েছে।
১৯ শে অক্টোবর ইংরেজি দৈনিক দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে সদ্য নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের সাবধানবাণী, আগামী ত্রৈমাসিকে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার ৫ শতাংশেরও নীচে নেমে যেতে পারে।
গত ১৪ ই অক্টোবর অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নোবেল প্রাপ্তির পরে একাধিক বিজেপি নেতার কটাক্ষ ভেসে এসেছে। রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল থেকে বিজেপি সাংসদ অনন্ত কুমার হেগড়ে কংগ্রেসের ন্যায় প্রকল্পের প্রবক্তা হিসাবে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে বিঁধতে ছাড়েননি। যদিও বিজেপি নেতাদের সমালোচনা কিংবা কটাক্ষকে একেবারেই পাত্তা দিচ্ছেন না অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বলেন, ন্যূনতম আয় যোজনা (ন্যায়) প্রকল্প নিয়ে কংগ্রেসকে পরামর্শ দেওয়ার ব্যাপারে তাঁর কোনও খেদ নেই। যদি বিজেপি চায়, তাদেরকেও সাহায্য করতে তিনি প্রস্তুত। তাঁর সাফ কথা, নীতি প্রণয়নে সহায়তা করতে গিয়ে কংগ্রেস-বিজেপি ভেদাভেদ করেন না।
শুক্রবার নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে ‘বাম ঘেঁষা’ বলে মন্তব্য করেন মোদী সরকারের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। বলেন, তাঁর ন্যায় প্রকল্পকে ভারতের জনতা ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছে। এই কটাক্ষে এতটুকুও বিচলিত নন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তারা (কংগ্রেস) আমাকে সঙ্গত প্রশ্ন করেছিল। নিশ্চিত আয় প্রকল্পের বাস্তবায়নের জন্য ঠিক কত টাকা খরচ হতে পারে। এই ব্যাপারে বিজেপি জিজ্ঞেস করলে, তাদেরকেও তিনি পরামর্শ দিতেন, মন্তব্য অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি বলেন, জনমুখী নীতি নির্ধারণের ক্ষেত্রে তাঁর কোনও রাজনৈতিক সংস্কার নেই।
দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বাঙালি নোবেলজয়ী। গত ৬ বছরের মধ্যে গত ত্রৈমাসিকে জিডিপির হার সর্বনিম্ন হয়ে ৫ শতাংশে ঠেকেছে। এই প্রেক্ষিতে অভিজিৎ বিনায়ক বলেন, ৫ শতাংশ এখনও ভালো, তবে আগামী দিনে আর্থিক বৃদ্ধির হার আরও কমবে। তিনি বলেন, বাস্তব হল ভারতীয় অর্থনীতিতে মন্দার গ্রাসে চলে গিয়েছে এবং কেন্দ্রীয় সরকারও তা আস্তে আস্তে স্বীকার করছে। পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের কর্পোরেট ট্যাক্স কমানোর সিদ্ধান্তে দেশের আর্থিক বৃদ্ধির কোনও উন্নতি হবে না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বাঙালি অর্থনীতিবিদ। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরামর্শ, যাঁদের রোজগার অনেকটাই বেশি, তাঁদের উপর কর বাড়াতেই হবে, এছাড়া আর কোনও রাস্তা নেই।

Comments
Loading...