‘যাঁরা হিন্দির বিরোধিতা করছেন, তাঁরা দেশকে ভালোবাসেন না’, বিপ্লব দেবের মন্তব্যে বিতর্কের ঝড়

হিন্দিকে যাঁরা রাষ্ট্রভাষা করতে আপত্তি জানাচ্ছেন, তাঁরা আসলে দেশকে ভালোবাসেন না। ফের বিতর্কিত মন্তব্য ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের।
গত ১৪ ই সেপ্টেম্বর হিন্দি দিবস উপলক্ষ্যে করা এক ট্যুইটে হিন্দিকে ভারতের জাতীয় ভাষা করার প্রস্তাব রাখেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ট্যুইটে তিনি লেখেন, ভারতের বিশ্বব্যাপী পরিচিতির জন্যে একটি অভিন্ন ভাষার প্রয়োজন, আর সেটি হতে পারে একমাত্র হিন্দি। তাঁর এই ট্যুইট বার্তার পরই বিতর্কের ঝড় ওঠে দেশে। প্রতিবাদে গর্জে উঠেছে একাধিক বিরোধী রাজনৈতিক দল থেকে বিশিষ্ট মানুষজন। অন্যদিকে, বিজেপি নেতা-মন্ত্রীরা অমিত শাহের পাশে দাঁড়িয়ে হিন্দিকেই জাতীয় ভাষার মর্যাদা দিতে চাইছেন। এই প্রেক্ষিতে সোমবার বিতর্কিত মন্তব্য করলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। বললেন, যাঁরা হিন্দির বিরুদ্ধে সওয়াল করছেন, তাঁদের আসলে দেশের প্রতি ভালবাসাই নেই।
বিপ্লব দেব বলেন, যেহেতু দেশের অধিকাংশ মানুষ হিন্দিতে কথা বলেন, তাই এই ভাষাকেই রাষ্ট্রভাষা করা হোক। বিজেপি নেতার যুক্তি, ২০০ বছর ধরে ইংরেজ ভারত শাসন না করলে ইংরেজি ভাষা কখনও সরকারি ভাষা করা হত না। ঔপনিবেশিক শাসনের প্রতি আনুগত্য থেকে প্রচুর মানুষের কাছে ইংরেজি ভাষা স্টেটাস সিম্বলের মতো হয়ে গিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, সরকারি অফিসে মানুষ বাংলা বা কোক বরোক ভাষায় কথা বললে কাজ করতে দেরি করেন সরকারি আধিকারিকরা। কিন্তু ইংরেজিতে কথা বললে সহজেই কাজ হয়। তাই এই অবস্থায় হিন্দিকেই রাষ্ট্র ভাষা করার পক্ষে জোর সওয়াল করেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী।
অন্যদিকে, হিন্দিকে জাতীয় ভাষা করার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন অভিনেতা তথা রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব কমল হাসান। মক্কল নিধি মাইয়াম (এমএনএম) প্রধান কমল হাসান সাফ জানান, কোনও শাহ, সুলতান বা সম্রাটের মর্জিমাফিক এই দেশ চলবে না। দরকারে ২০১৭ সালের জাল্লিকাট্টু আন্দোলনের চেয়েও বড় আকারে প্রতিবাদে নামার হুঁশিয়ারি দেন কমল হাসান। তাঁর কথায়, ভারতীয় প্রজাতন্ত্র তৈরি হওয়ার সময় সমস্ত রাজ্যের বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য রক্ষার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। সেই বৈচিত্রের ওপর কোপ পড়লে নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ‘ভাষাযুদ্ধ’ শুরু হবে বলে তোপ দাগেন কমল।
হিন্দি দিবসে অমিত শাহের ট্যুইট নিয়ে প্রবল বিতর্ক তৈরি হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, ডিএমকে নেতা স্ট্যালিন প্রায় সব বিজেপি বিরোধী নেতৃত্ব অমিত শাহের মন্তব্যের বিরোধিতা করেছেন। সোমবার নাম না করে তাঁদের একযোগে আক্রমণ করলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা বিপ্লব দেব।

Comments
Loading...