অসম এনআরসি: নাম বাদ গেলে ফরেনার ট্রাইব্যুনালে আবেদনের সুযোগ, নির্দেশিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের

অসমে এনআরসির চূড়ান্ত খসড়ায় বাতিল হওয়া ব্যক্তিদের ফের আবেদনের করার ব্যবস্থা নিল কেন্দ্রীয় সরকার। চলতি মাসের মধ্যেই এনআরসির চূড়ান্ত খসড়া জমা দিতে হবে। তবে এই তালিকা থেকে বাদ যাওয়া ব্যক্তিরা নিজেদের অসমের বাসিন্দা হিসেবে প্রমাণ করার জন্য ফরেনার ট্রাইবুনালে আবেদন করতে পারবেন বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে গোটা বিষয়টি পর্যালোচনা করার পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে।
সোমবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়াল সহ কেন্দ্র ও অসম সরকারের শীর্ষ আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিবৃতিটি ট্যুইট করে পিআইবি জানিয়েছে, এনআরসি তালিকায় নাম না থাকা ব্যক্তিদের নাগরিকত্ব প্রমাণ করার জন্য যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। যাঁরা এনআরসি খসড়ায় নিজেদের নাম তুলতে পারেননি, বা চূড়ান্ত খসড়া থেকে যাঁদের নাম বাদ পড়েছে, তাঁরা উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ দিয়ে ফরেনার ট্রাইবুনালে আবেদন জানাতে পারবেন। অসমের বিভিন্ন প্রান্তে এই ফরেনার ট্রাইবুনাল কেন্দ্র তৈরির ভার দেওয়া হয়েছে অসম সরকারকে। সেই সঙ্গে এনআরসি থেকে বাতিল হওয়া ব্যক্তিদের আইনি সাহায্যের জন্য অসম সরকার ব্যবস্থা নেবে বলেও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের ওই বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। এই সময়ে রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য কেন্দ্রীয় সশস্ত্র বাহিনীর সাহায্য নিতে পারে অসম সরকার।
অসমের এনআরসি খসড়া জমা দেওয়ার শেষ তারিখ আগামী ৩১ শে অগাস্ট। গত ৩১ শে জুলাইয়ের মধ্যে এনআরসি সম্পূর্ণ তালিকা প্রকাশ করার কথা থাকলেও, নাগরিকপঞ্জিতে অনেক ভুল নাম অন্তর্ভুক্ত হওয়া এবং রাজ্যের বহু প্রকৃত বাসিন্দার নাম বাদ পড়ার অভিযোগ ওঠে। এই প্রেক্ষিতে নির্ভুল এনআরসি খসড়া প্রস্তুত করতে সুপ্রিম কোর্টের কাছে বাড়তি সময় চেয়ে আবেদন জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। স্টেট কো-অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলা শীর্ষ আদালতে জানিয়েছিলেন, প্রায় ৮০ লক্ষ নাম পুনর্বিবেচনা করে দেখতে হবে। এরপর চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জি জমা দেওয়ার সময় বাড়ানো হয়।

Comments
Loading...