৪ টি লোকসভা ও ১০ বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন, নজরে উত্তরপ্রদেশের কৈরানা

দেশের ১০ টি লোকসভা এবং চারটি বিধানসভা কেন্দ্রে সোমবার অনুষ্ঠিত হল উপনির্বাচন। তবে সারাদেশের রাজনৈতিক মহলের চোখ অবশ্যই  উত্তর প্রদেশের কৈরানা লোকসভা আসনের দিকে। গোরখপুর এবং ফুলপুর আসনের মতই  কৈরানা লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বিজেপিকে হারাতে রাষ্ট্রীয় লোক দলের প্রার্থী অজিত সিংহকে একযোগে সমর্থন করেছে ‘সপা’ ও বসপা’।  বিজেপি সাংসদ হুকুমচাঁদ সিংহের মৃত্যুতে শূণ্য হয় আসনটি। উত্তরপ্রদেশেই ফুলপুর এবং গোরক্ষপুর আসনে সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজ পার্টির জোটের কাছে হেরে মুখ পুড়েছিল উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। আক্ষরিক অর্থেই তাই দেশের সাধারণ মানুষ থেকে তাবড় রাজনৈতিক নেতা সবার পাখির চোখ এখন  কৈরানা লোকসভা আসনের দিকে। বিজেপিকে ঠেকাতে যে শুধু অখিলেশ-মায়াবতীর  বহু চর্চিত ‘বুয়া- ভাতিজা’ জোট হয়েছে তাই নয়। রাষ্ট্রীয় লোক দল শক্তিকে সমর্থন জানিয়েছে কংগ্রেস, আপ। বিরোধী শক্তি ক্রমশই এক ছাতার তলায় আসছে। সামনের বছর লোকসভা ভোটের আগে তাই কৈরানা আসনটি বিজেপির ধরে রাখা অবশ্যই অ্যাসিড টেস্ট।
সদ্য সমাপ্ত কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনেও দেখা গিয়েছে ১০৪ টি আসন বিজেপি এককভাবে পেলেও, কংগ্রেস এবং জেডিএস জোটের কাছে শেষ পর্যন্ত ফিকে হয়ে যায় সরকার গড়ার স্বপ্ন। যদিও সরকার গঠনের লড়াই সুপ্রিম কোর্টের দরজা পর্যন্ত পৌঁছোয়। আস্থা ভোটের মুখোমুখি হওয়ার আগেই ইস্তফা দেন ইয়েদুরাপ্পা। কুমারস্বামীর শপথ গ্রহনের অনুষ্ঠানেও সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী, মমতা বন্দোপাধ্যায়, মায়াবতী, চন্দ্রবাবু নাইডুদের উপস্থিতি বিজেপি বিরোধী একটি  শক্তিশালি জোটের ছবি সামনে এনেছে। এদিন রাজ্যের মহেশতলা বিধানসভা কেন্দ্রেও অনুষ্ঠিত হয় উপনির্বাচন।

Comments
Loading...