জোর ধাক্কা পাকিস্তানের, ৪৪০ মিলিয়ন ডলার অর্থ সাহায্য কমিয়ে দিল আমেরিকা, জঙ্গি দমনে কার্যকরী ভূমিকা নিতে না পারায় সাহায্যে কোপ

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ফের ধাক্কা খেল পাকিস্তান। এবার পাকিস্তানকে দেওয়া আর্থিক সাহায্যে রাশ টানল আমেরিকা। কমিয়ে দেওয়া হল ৪৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আর্থিক সাহায্য।
২০১০ সালের সেপ্টেম্বরে পাকিস্তান ও আমেরিকার মধ্যে পাকিস্তান এনহ্যান্সড পার্টনারশিপ এগ্রিমেন্ট (পিপা) সই হয়। চুক্তি অনুযায়ী পাকিস্তানকে ৪.৫ বিলিয়ন ডলার আর্থিক সহায়তা করার কথা আমেরিকার। কিন্তু সেই চুক্তির অর্থ কাটছাঁট করে ৪.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার করা হয়েছে। অর্থাৎ সাহায্যের পরিমাণ কমেছে ৪৪০ মিলিয়ন ডলার।
মার্কিন আর্থিক সাহায্যের পরিমাণ যে কমবে তা ক’দিন আগেই আঁচ করেছিল পাকিস্তান। সপ্তাহ তিনেক আগে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের আমেরিকা সফরের আগেই তাঁকে এ ব্যাপারে অবহিত করেছিল হোয়াইট হাউজ। এরপর পাক প্রধানমন্ত্রীর মার্কিন সফরেও ইসলামাবাদের প্রবল সমালোচনায় মুখর হয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর অভিযোগ ছিল পাকিস্তানকে আর্থিক সহায়তা করা হচ্ছে কিন্তু সন্ত্রাসবাদ দমনে পাকিস্তান কোনও সদর্থক ভূমিকা নিচ্ছে না। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, কয়েক বছর ধরে পাকিস্তানকে ১.৩ বিলিয়ন ডলার আর্থিক সাহায্য করে আসছে ওয়াশিংটন। কিন্তু বিভিন্ন বিষয়ে পাকিস্তানের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ হয়ে বছর দেড়েক আগে এই সাহায্য বন্ধ করে দেন বলে ইমরান খানকে জানিয়েছিলেন ট্রাম্প।
গত বছর সেপ্টেম্বরেও পাকিস্তানকে সামরিক সাহায্যের পরিমাণ কমিয়ে দিয়েছিল আমেরিকা। সন্ত্রাসবাদ দমন করতে পারছে না পাকিস্তান, এমনই অভিযোগে প্রায় ৩০ কোটি মার্কিন ডলার সাহায্য বাতিল করে দেওয়া হয় সেসময়। গত জানুয়ারি মাসেই আবার পেন্টাগন জানায়, যে ১০০ কোটি মার্কিন ডলার অর্থসাহায্য দেওয়ার কথা ছিল ইসলামাবাদকে, সন্ত্রাস দমনে পাক সরকার তেমন পদক্ষেন নিতে না পারায়, তা  বাতিল করা হচ্ছে।
জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ ইস্যুতে ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রপুঞ্জের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে জোর ধাক্কা খেয়েছে চিন ও পাকিস্তান। এবার পিপা চুক্তির সাহায্যও কমিয়ে দেওয়ায় আরও কোণঠাসা হল পাকিস্তান।

Comments
Loading...