বিধানসভায় নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব পাশ করায় বিজয়নের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ আনতে চায় বিজেপি

কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের অভিযোগ আনল বিজেপি। দলের অন্যতম মুখপাত্র এবং সাংসদ জি ভি এল নরসিমা রাও এ ব্যাপারে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম বেঙ্কাইয়া নাইডুকে চিঠি দিয়েছেন।
কেন বিজয়নের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ কেন্দ্রের শাসক দলের? বিজেপির দাবি, বিজয়ন সরকার যেভাবে রাজ্য বিধানসভায় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বাতিলের জন্য প্রস্তাব পাশ করিয়েছে, তা আসলে সংবিধান এবং সংসদকে অপমান করা। এর জন্যই তাঁর বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গ এবং নিন্দা প্রস্তাব আনা উচিত সংসদে। গত মঙ্গলবার কেরল বিধানসভার বিশেষ অধিবেশন ডেকে ওই আইন বাতিলের দাবিতে প্রস্তাব আনা হয়। বিরোধী কংগ্রেসও তাকে সমর্থন করে। পরে সেটি সর্বসম্মতভাবে পাশ হয়ে যায়।
কেরল বিধানসভার এই উদ্যোগের পরেই কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যগুলিকে এড়িয়ে নয়া নাগরিকত্ব আইন কার্যকর করা যায় কি না, তা নিয়ে ভাবনা-চিন্তা শুরু করেছে। অন লাইনে নাগরিকত্ব দেওয়ার ব্যাপারে তৎপর হয়েছে তারা। কেরল সরকারকে উদ্দেশ্য করে কেন্দ্রীয় সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি বলেন, যাঁরা সংবিধানের নামে শপথ নিয়ে তাকে ধ্বংস করছেন, তাঁরা দায়িত্বজ্ঞানহীন। এতে একই সঙ্গে সংবিধান এবং সংসদকে অপমান করা হয়েছে। কারণ, সংসদের দুই কক্ষে এই বিল পাশ হওয়ার পর তা আইনে পরিণত হয়েছে।
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি-সহ একাধিক অ-বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁদের রাজ্যে ওই নয়া আইন কার্যকর করা হবে না। কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, কোনও রাজ্য সরকার কেন্দ্রীয় আইন এভাবে অমান্য করতে পারেনা। বিল যখন একবার আইনে পরিণত হয়ে গিয়েছে, তার পর আর এর থেকে পালানোর কোনও পথ নেই। সব রাজ্য সরকারকেই এই কেন্দ্রীয় আইন মানতে হবে।

Comments
Loading...