তথাগত রায়ের রাজনীতির মূলস্রোতে ফেরার পথে মূল কাঁটা কি তৃণমূলের নির্বাচনী কৌশলী প্রশান্ত কিশোর? এই প্রশ্ন উঠছে, তার কারণ বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর রাতে মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপালের করা একটি ট্যুইট। সেখানে তিনি সরাসরি পিকের নাম করে অভিযোগ করেছেন, তাঁর নাম নিয়ে গোলমাল করে বঙ্গ বিজেপিতে অবস্থান দুর্বল করতে চাইছেন তৃণমূলের নির্বাচনী কৌশলী। কেন এমন বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ?

গত এক-দেড় বছরে রাজ্যের বিভিন্ন ইস্যুতে শিলংয়ের রাজভবনে বসে ট্যুইট করেছেন তথাগত রায়। তা সে ইস্টবেঙ্গলের শতবর্ষ নিয়ে কেন উছ্বাস, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা দিয়ে শুরু হয়ে বাঙালি তরুণ-তরুণীদের অন্য রাজ্যে কাজ করতে যাওয়ার কারণ, প্রয়াত জ্যোতি বসু, প্রমোদ দাশগুপ্ত থেকে মমতা ব্যানার্জি, অমর্ত্য সেন, অভিজিৎ বিনায়ক ব্যানার্জি, তথাগত রায় ট্যুইটে নিশানা করেছেন সবাইকে। তখনই জল্পনা শুরু হয়েছিল, বাংলার রাজনীতি নিয়ে কেন এত সক্রিয় মেঘালয়ের রাজ্যপাল।
রাজ্যপাল পদের মেয়াদ শেষে সম্প্রতি কলকাতায় ফিরে সক্রিয় রাজনীতিতে ফের প্রবেশের সিদ্ধান্ত নেন তথাগত। শুধু তাই নয়, তিনি যে মুখ্যমন্ত্রী পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হতে পারেন, তাও কৌশলে ভাসিয়ে দেন নিজেই।
কিন্তু রাজ্যে ফিরলেও, বঙ্গ বিজেপিতে প্রবেশ সহজ হয়নি তথাগত রায়ের। অতীতে বিভিন্ন সময়ে তথাগত রায় বর্তমান রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের রাজনীতি নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। দিলীপ ঘোষের আরেক প্রতিপক্ষ মুকুল রায়কে সঙ্গে নিয়ে রাজ্যের দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় নেতা বিজয়বর্গীয়র সঙ্গে দেখা সেরেছেন তথাগত রায়। কিন্তু দলে আনুষ্ঠানিক অন্তর্ভুক্তি আজও হয়নি। এই পরিস্থিতিতে তথাগত রায়কে ঘিরে বঙ্গ বিজেপিতে দিলীপ বিরোধী একটি গোষ্ঠী গড়ে উঠতে পারে কিনা তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। তথাগত রায়কে নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে বিজেপির অন্দরে। এই পরিস্থিতিতে তাঁকে নিয়ে দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বাধীন বঙ্গ বিজেপির অন্দরে যে বিভ্রান্তি, জল্পনা, তার জন্য তথাগত রায় দায়ী করলেন তৃণমূলের নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরকে!

কিন্তু প্রশান্ত কিশোরের বিরুদ্ধে তথাগত রায়ের এমন বিস্ফোরক অভিযোগের কারণ কী? রাজ্যের কয়েকটি জায়গায় যদি তথাগত রায়ের সমর্থনে মিছিল করেন বিজেপি সমর্থকেরা, তাহলে সেখানে পিকের হাত কেন দেখছেন রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি? রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, হঠাৎ রাজ্যে এসে বিজেপির নেতৃত্বের দাবি করা তথাগত রায়কে সহজে জায়গা ছাড়তে রাজি নন দিলীপ ঘোষ গোষ্ঠী। তা তিনি নিজেও বুঝতে পারছেন। নিজের দলের মধ্যে এই অস্বস্তি এড়াতে এবার পিকেকে ঢাল করলেন মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল। কৌশলে হয়তো বার্তা দিলেন দিলীপ ঘোষকে।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us