CBSE সিলেবাস থেকে বাদ ধর্মনিরপেক্ষতা, কেন স্থানীয় সরকার দরকার সহ একাধিক অধ্যায়, তীব্র প্রতিবাদ মুখ্যমন্ত্রীর

সিবিএসই (CBSE) র পাঠ্যক্রম থেকে বাদ দেওয়া হল ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতান্ত্রিক অধিকারের মতো অধ্যায়। যা নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক। কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। দাবি করলেন, যে কোনও মূল্যে এই অধ্যায়গুলি ফেরাতে হবে স্কুল সিলেবাসে।
করোনার কারণে পড়ুয়াদের উপর চাপ কমাতে সিবিএসই-র সিলিবাসের ৩০ শতাংশ কমানোর কথা আগেই ঘোষণা করেছিলেন মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল। সেই সিলেবাস কমানোর জের হিসেবে একাদশ শ্রেণির রাষ্ট্র বিজ্ঞানের সিলেবাস থেকে বাদ পড়ল নাগরিকত্ব, ধর্মনিরপেক্ষতা, গণতান্ত্রিক অধিকার, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো, জাতীয়তাবাদের পুরো অধ্যায়টি। মঙ্গলবার সেন্ট্রাল বোর্ড অফ সেকেন্ডারি এডুকেশন বা CBSE র তরফে জানানো হয়, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে রাষ্ট্র বিজ্ঞানের এই পুরো অধ্যায়টি বাদ দেওয়া হচ্ছে। কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার এক ট্যুইটে মমতা ব্যানার্জি লেখেন, আমি জেনে বিস্মিত হয়েছি যে, কেন্দ্রীয় সরকার নাগরিকত্ব, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো, ধর্মনিরপেক্ষতা ও দেশভাগের মতো গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় করোনা পরিস্থিতির দোহাই দিয়ে স্কুল সিলেবাস থেকে ছেঁটে ফেলেছে। আমরা এর তীব্র বিরোধিতা করছি এবং কেন্দ্রের কাছে আবেদন রাখছি, কোন মূল্যেই যেন এই গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়গুলি বাদ দেওয়া না হয়।

এছাড়াও সিবিএসই-র অন্যান্য অধ্যায়ের মধ্য থেকে বাদ পড়েছে, ‘কেন আমাদের স্থানীয় সরকার দরকার’, ‘ভারতে স্থানীয় সরকারের অগ্রগতি’
ইত্যাদির মতো রাষ্ট্র বিজ্ঞানের অতি গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো। সিবিএসই-র তরফে বলা হচ্ছে, সিলেবাসের বহর কমাতে এই অংশগুলো বাদ দেওয়া হলেও অনুসন্ধিৎসু পড়ুয়ারা শিক্ষকের কাছ থেকে এগুলি জেনে নিতে পারবেন। একইরকম ভাবে দ্বাদশ শ্রেণির রাষ্ট্র বিজ্ঞানের সিলেবাস থেকে বাদ পড়ছে ‘বর্তমান বিশ্বে সুরক্ষা’, ‘পরিবেশ ও প্রাকৃতিক সম্পদ’, ‘ভারতে সামাজিক ও নয়া সামাজিক আন্দোলন’ এবং ‘আঞ্চলিক আকাঙ্ক্ষা’ র মতো চ্যাপ্টার। এছাড়া ‘পরিকল্পনাভিত্তিক উন্নয়ন’ শীর্ষক অধ্যায় থেকে ছেঁটে ফেলা হয়েছে ‘ভারতের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ধারা পরিবর্তন’, ‘প্ল্যানিং কমিশন’, ‘পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা’ ইউনিটগুলি।
‘ভারতের বিদেশ নীতি’ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, ‘প্রতিবেশীদের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক: পাকিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা ও মায়ানমার’। এছাড়া অর্থনীতির বই থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে ‘খাদ্য সুরক্ষা’ অধ্যায়টি।

Comments
Loading...