আর্থিক অনিয়ম, ঋণখেলাপিতে ২০১৫ সালের পর ৭২ জন দেশছাড়া, লোকসভায় জানাল কেন্দ্র

শুধু নীরব মোদী, মেহুল চোকসি কিংবা বিজয় মাল্য নন, আর্থিক অনিয়ম ও ঋণখেলাপিতে অভিযুক্ত মোট ৭২ জন ব্যক্তি এই মুহূর্তে দেশছাড়া। তাঁদের দেশে ফেরানোর সব রকমের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। লোকসভায় এমনই তথ্য দিয়েছে কেন্দ্র।
বুধবার লোকসভায় এক প্রশ্নের জবাবে বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৫ সাল থেকে মোট ৭২ জন ঋণখেলাপি ও আর্থিক অনিয়মে অভিযুক্ত দেশ ছেড়ে গিয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে যথাযথ ফৌজদারি মামলা জারি হয়েছে, তদন্তও চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী এজেন্সি। লুক আউট সার্কুলার (এলওসি) এবং রেড কর্নার নোটিসও জারি হয়েছে কয়েকজনের বিরুদ্ধে। তাঁদের দেশে ফেরানোর প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে সংসদে তথ্য দিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক। ওই মন্ত্রকের দাবি, এঁদের প্রত্যর্পণের ব্যাপারে যথাযথ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রত্যর্পণের প্রক্রিয়া বেশ জটিল হওয়ায় বিভিন্ন আইনের গেরোয় আটকে পড়তে হচ্ছে কেন্দ্রকে।
লোকসভায় কেন্দ্র জানিয়েছে, ঋণখেলাপি ও আর্থিক অনিয়মের অভিযোগে যেসব শিল্পপতিরা বিদেশে পালিয়েছেন, সেই তালিকার কয়েকজন হলেন পুষ্পেশ বৈদ্য, আশিস জোবাভপুত্র, কিংফিশারের মালিক বিজয় মালিয়া, সানি কালরা, সঞ্জয় কালরা, সুধীরকুমার কালরা, আরতি কালরা, বর্ষা কালরা, যতীন মেহেতা, উমেশ পারেখ, কমলেশ পারেখ, নীলেশ পারেখ, একলব্য গর্গ, বিনয় মিত্তল, নীরব মোদী, নীশাল মোদী, রাজীব গোয়েল, মেহুল চোকসি, ললিত মোদী, নীতীন জয়ন্তীলাল সন্দেশেরা, রীতেশ জৈন প্রমুখ।
২০১৯ সালের ৪ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের তৎকালীন প্রতিমন্ত্রী এস পি শুক্লা লোকসভায় মোট ২৭ জন ঋণখেলাপির নাম তুলে ধরেছিলেন, যাঁরা গত পাঁচ বছরে দেশ থেকে পালিয়েছেন। কেন্দ্রের রিপোর্টে সেই সংখ্যা এবার বেড়ে ৭২ হল।

Comments
Loading...