মাও কবল থেকে মুক্তির আগে কোবরা কমান্ডোকে গণ আদালতে পেশ! কারা ছিলেন মধ্যস্থতাকারী?

মোট ১১ জন সদস্য নিয়ে তৈরি হয়েছিল মধ্যস্থতাকারীদের টিম

মাওবাদীরা মুক্তি দিয়েছে কোবরা জওয়ান রাকেশ্বর সিংহকে। ৫ দিন হেফাজতে রেখে ৮ এপ্রিল মাওবাদীরা মুক্তি দেয় জওয়ানকে।

রাকেশ্বর আদতে কাশ্মীরের বাসিন্দা। শনিবার বিজাপুর সীমানায় মাওবাদী হামলার পর রাকেশ্বরকে অপহরণ করা হয়েছিল। ঘটনার ৪ দিন পর মাওবাদীদের পক্ষ থেকে নিহতদের সংখ্যা জানানো হয়, যার মধ্যে রয়েছেন এক মহিলাও।

বিবৃতি দিয়ে মৃতদের নাম এবং ছবি প্রকাশের পাশাপাশি অপহৃত জওয়ানের সুস্থতার খবরও মাওবাদীরা জানায়। এরপর মধ্যস্থতাকারীদের হাতে কোবরা জওয়ানের মুক্তি দেবে বলে জানায় মাওবাদীরা। ছত্তিশগঢ় সরকার দাবি মেনে নেয়।

জানেন, কাদের মধ্যস্থতায় বাড়ি ফিরলেন অপহৃত জওয়ান?

মোট ১১ জন সদস্য নিয়ে তৈরি হয়েছিল মধ্যস্থতাকারীদের টিম। দলে ছিলেন সমাজকর্মী পদ্মশ্রী ধর্মপাল সায়নী, গন্ডোয়ানা সমাজ নেতা তেলাম বোরায়া। এছাড়াও ছিলেন মহিলা প্রতিনিধি সিমলা সুখমতী এবং স্থানীয় ৪ জন সাংবাদিক গণেশ মিশ্রা, মুকেশ চন্দ্রকার, রঞ্জন দাস ও চেতন কাপেওয়ার।

সূত্রের খবর, কোবরা জওয়ানকে মুক্তি দেওয়ার আগে মাওবাদীরা তাঁকে জন আদালতে পেশ করে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে বসে গণ সালিশি। এরপর ওই ১১ জনের মধ্যস্থতাকারীর হাতে রাকেশ্বর সিংহকে তুলে দেন মাওবাদী নেতারা।

৩ এপ্রিল ছত্তীসগঢ়ে জাগারগুন্ডা-জোঙ্গাগুড়া-তারেমের জঙ্গলে মাওবাদী হামলা হয়। নিহত হয় ২২ জওয়ান এবং আহতের সংখ্যা ছিল ৩১। প্রায় ৪০০ জন মাওবাদী হামলা চালায়।

Comments
Loading...