করোনাভাইরাসের জেরে লকডাউন চলছে দেশজুড়ে। এর মধ্যেই বাড়ছে একের পর এক আক্রান্তের সংখ্যা। এই মুহূর্তে রাজ্যভিত্তিক পরিস্থিতি ঠিক কী?

গত বছরের ডিসেম্বর মাস থেকে চিনে করোনা সংক্রমণের খবর উঠে এলেও ভারতে করোনা আতঙ্ক ছড়ায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে। গত ৩০ জানুয়ারি কেরলে প্রথম কোভিড-১৯ পজিটিভের খবর মেলে। এরপর বেঙ্গালুরু, পুণে, দিল্লি হয়ে প্রায় সারা দেশেই ছড়িয়ে পড়ে নোভেল করোনাভাইরাস।

২৬ মার্চ পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫০ ছাড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী রাজ্যভিত্তিক আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা

২৬ মার্চ পর্যন্ত ৬৬০ জনের করোনা টেস্ট পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে ১৫ জন মারা গিয়েছেন।

 

কোন রাজ্যে কত মৃত?

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মহারাষ্ট্রে ৩ জন, গুজরাতে ৩, বাংলায় ১, মধ্যপ্রদেশে ১, কর্ণাটকে ১, দিল্লিতে ১, পঞ্জাবে ১, বিহারে ১, হিমাচল প্রদেশে ১, তামিলনাড়ুতে ১ এবং জম্মু কাশ্মীরে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

 

রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে করোনা পজিটিভ

২৬ মার্চ দুপুর পর্যন্ত দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মহারাষ্ট্রে। সেখানে ১২৪ জনের দেহে করোনা পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে তিনজন আক্রান্ত বিদেশি।

মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে কেরল। সেখানে ১১২ জনের দেহে কোভিড-১৯ ভাইরাস মিলেছে। আক্রান্তদের মধ্যে সাতজন বিদেশি রয়েছেন। এরপরে রয়েছে কর্ণাটক। মোট ৫১ জন করোনা আক্রান্তের খবর মিলেছে দক্ষিণের এই রাজ্যে। গুজরাতে মোট ৪৩ জনের দেহে কোভিড-১৯ ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে।

উত্তরপ্রদেশে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮-এ। যার মধ্যে একজন বিদেশি আছেন।

দিল্লিতে এক বিদেশি সহ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩৬ -এ। রাজস্থানেও দুই বিদেশি সহ মোট ৩৮ জন করোনা আক্রান্ত।

তেলেঙ্গানায় ১১ জন বিদেশি সহ ৩৯ জন, তামিলনাড়ুতে তিন বিদেশি সহ ২৬ জন, হরিয়ানায় ১৪ বিদেশি সহ ২১ জন, অন্ধ্রপ্রদেশে ১০ জন করোনা আক্রান্তের খবর মিলেছে।

এছাড়া জম্মু কাশ্মীরে ১১, লাদাখে ১৩,

হিমাচলপ্রদেশে ৪, উত্তরাখণ্ডে ৪, ওড়িশায় ২, পশ্চিমবঙ্গে ১১, চণ্ডীগড়ে ৭, ছত্তিসগড়ে ৬, মধ্যপ্রদেশে ২৩, বিহারে ৬, পুদুচেরিতে ১,

মণিপুরে ১, মিজোরামে ১, গোয়ায় ৬, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

২৬ মার্চ পর্যন্ত মোট ৪৩ জন করোনা আক্রান্ত সুস্থ হয়েছেন বলে কেন্দ্রীয় সরকার সূত্রে খবর।

 

কোন রাজ্যে করোনা নেই? 

ঝাড়খণ্ড সরকার জানিয়েছে, তাদের রাজ্যে একটিও করোনা পজিটিভ কেস নেই। ২৫ মার্চ পর্যন্ত মোট ৭৭ জনের রক্ত ও লালারসের নমুনা পাঠানো হয়, যার মধ্যে ৬১ জনের রিপোর্টে করোনা মেলেনি। বাকিদের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করা হচ্ছে। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে দাদরা ও হাভেলি, দমন দিউ, লাক্ষাদ্বীপ, অরুণাচলপ্রদেশ, সিকিমে করোনা পজিটিভ কেসের কথা এখন পর্যন্ত শোনা যায়নি।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা শুরু করেছি সাবস্ক্রিপশন অফার। নিয়মিত আমাদের সমস্ত খবর এসএমএস এবং ই-মেইল এর মাধ্যমে পাওয়ার জন্য দয়া করে সাবস্ক্রাইব করুন। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

Corona Hit Automobile Sector
UN Report on Corona Hit Economy