এবার দেশের সবচেয়ে ধনী মুকেশ আম্বানীর সংস্থায় পে-কাট! উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত কাটা হচ্ছে বেতন

করোনাভাইরাসের জের, এবার দেশের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানীর সংস্থা রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের কর্মীদের বেতনেও কোপ পড়ল। সংস্থার হাইড্রোকার্বন সেক্টরের কর্মীদের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেতন কাটার কথা ঘোষণা করেছে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ। মুকেশ আম্বানী নিজেও বেতন নিচ্ছেন না বলে বৃহস্পতিবার তাঁর সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে।
করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এক মাসের বেশি লকডাউনের জেরে ব্যবসা-বাণিজ্য প্রায় তলানিতে। এই পরিস্থিতিতে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের তেল এবং পেট্রো কেমিক্যালের চাহিদা কমায় কর্মীদের বেতন কেটে নেওয়ার পদক্ষেপ নেওয়া হল। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার অ্যাডভাইজরি জারি করে জানিয়েছিল, লকডাউনের মধ্যে কোনও সংস্থার কর্মীর বেতন কাটা বা চাকরি থেকে ছাঁটাই করা যাবে না।
বৃহস্পতিবার মুকেশ আম্বানীর রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের পক্ষ থেকে জানানো হয়, যে সমস্ত কর্মীর বার্ষিক বেতন ১৫ লক্ষের কম, তাঁদের বেতনে কোনও কাটছাঁট করা হচ্ছে না ৷ কিন্তু যে কর্মীদের বার্ষিক বেতন ১৫ লক্ষের বেশি, তাঁদের ফিক্সড পে থেকে ১০ শতাংশ কেটে নেওয়া হবে। এছাড়া সংস্থার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর, এক্সিকিউটিভ কমিটির সদস্য, উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের বেতনের ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ কাটা হবে।
রিলায়েন্সের হাইড্রোকার্বন সেক্টরের কর্মীদের বোনাস এবং ইনসেনটিভ দেওয়া হয় প্রথম ত্রৈমাসিকে। সেসবও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে লকডাউনের জেরে। মুকেশ আম্বানী তাঁর মাসিক বেতন ১৫ কোটি টাকার একাংশও নেবেন না বলে জানানো হয়েছে সংস্থার তরফে। রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর আর মেসওয়ানি জানান, চাহিদা কমে যাওয়ায় ‌হাইড্রোকার্বন এবং পেট্রোকেমিক্যালের ব্যবসায় প্রভাব পড়েছে। তাই কর্মীদের বেতন কেটেই খরচ সামাল দেওয়া হবে।‌
পাশাপাশি এও জানানো হয়, চলতি বছরের মার্চের হিসেবে ঋণের পরিমাণ কম করতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গত বছরের শেষে সংস্থার ঋণ ছিল ৪৩ বিলিয়ন ডলার।
হাইড্রোকার্বন সেক্টর ছাড়া রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের অন্যান্য ক্ষেত্রের কর্মীর বেতনেও কোপ পড়বে কি না তা এখনই পরিষ্কার নয়।

Comments
Loading...