করোনা জর্জরিত গুজরাতে গোবর-গোমূত্র-দুধ-ঘি-মাখন থেকে তৈরি করোনা নিরাময়ের ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হচ্ছে!

ওষুধ কিংবা প্রতিষেধক, কোভিড ১৯ তাড়াতে এই দু’য়ের সন্ধানে গবেষণাগারে বিনিদ্র রাত কাটছে দুনিয়ার তাবড় বিজ্ঞানীদের। বাদ নেই ভারতের বিজ্ঞান গবেষকরাও। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে গবেষণা এগোচ্ছে ভালোই। কিন্তু এখনও নিরাময়ের উপায় অধরা।

এই পরিস্থিতিতে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারি প্রতিষ্ঠান রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগ জানাচ্ছে, কোভিড ১৯ এর ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করতে চলেছে তারা। যে ওষুধের উদ্ভব পঞ্চগব্য থেকে। পঞ্চগব্য অর্থাৎ গরুর দুধ, বাটার, ঘি, গোবর এবং গোমূত্র।

সম্প্রতি গুজরাতের দৈনিক সংবাদপত্র আহমেদাবাদ মিররে প্রকাশিত হয়েছে এই সংবাদ। সেই প্রতিবেদনে রাষ্ট্রীয় কামধেনু আয়োগের চেয়ারম্যান ডক্টর বল্লভ কাঠিরিয়াকে উদ্ধৃত করে জানানো হয়েছে, অ্যালোপ্যাথিক ওষুধ পরীক্ষার প্রোটোকল মেনেই এই পঞ্চগব্য কোভিড নিরাময়ের ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হচ্ছে।

প্রতিবেদনে ডক্টর কাঠিরিয়া জানিয়েছেন, ভারতে ওষুধ হিসেবে পঞ্চগব্যের ব্যবহার শতাব্দী প্রাচীন। কিন্তু বাইরে তা এখনও বিজ্ঞান সম্মত বলে স্বীকৃত নয়। আজ যখন গোটা পৃথিবী কোভিড ১৯ এর ওষুধ খুঁজছে, তখন পঞ্চগব্য নিঃসৃত ওষুধ আমাদের সামনে নয়া দিগন্ত খুলে দিতে পারে।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, পঞ্চগব্য কোভিড নিরাময়ের ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলবে দেশের ১০ টি হাসপাতালে। তার শুরু প্রধানমন্ত্রী মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের রাজ্য গুজরাত থেকে। প্রথমেই রাজকোটের সিভিল হাসপাতালে এই ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হবে। তারপর সুরাত সিভিল হাসপাতাল। ওয়ার্ধা, পুণে, হায়দরাবাদ এবং যোধপুরের হাসপাতালে রোগীদের উপরও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলবে। যদিও এখনও পর্যন্ত কোনও রোগীকে সুস্থ করে তোলার পিছনে পঞ্চগব্যের উপযোগিতা প্রমাণ হয়নি।

তা বলে পঞ্চগব্য নিয়ে প্রশংসা থামেনি। এই তালিকায় একেবারে উপরে রয়েছেন বিতর্কিত বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিংহ ঠাকুর। তিনি দাবি করেছিলেন, আয়ুর্বেদিক জড়িবুটির সঙ্গে গোমূত্র মিশিয়ে সেবনের পরই তাঁর স্তন ক্যানসার সেরে যায়। যদিও পরে লখনউয়ের আরএমএল ইন্সস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেসে কর্মরত কার্ডিওভাস্কুলার সার্জন ডক্টর এস এস রাজপুত বিজেপি নেত্রীর দাবি নস্যাৎ করেন। বলেন, তিনি নিজে মুম্বইয়ের জেজে হাসপাতালে প্রজ্ঞা সিংহের অপারেশন করেছিলেন। তারপরই সুস্থ হন তিনি।

করোনা পর্বে খবরের শিরোনামে গুজরাত। দেশে সবচেয়ে বেশি করোনা প্রভাবিত রাজ্য হিসেবে একেবারে প্রথম সারিতে মোদী-রাজ্য। কখনও ভুয়ো ভেন্টিলেটর আবার কখনও বেশি টেস্ট না করার কারণ হিসেবে প্যানিক ছড়ানোর আশঙ্কার সওয়াল, করোনা মোকাবিলায় রুপানি সরকারের অবস্থা শোচনীয়। করোনা মোকাবিলায় গাফিলতি তুলে ধরে রাজ্যের বিজেপি সরকারকে গুজরাত হাইকোর্ট তীব্র ভর্ৎসনা করেছে। আহমেদাবাদ, যেখানে সবচেয়ে বেশি কোভিড রোগীর মৃত্যু হচ্ছে, সেই সিভিল হাসপাতালকে কাল কুঠুরিরও অধম বলে বর্ণনা করেছে হাইকোর্ট। এরই মধ্যে গুজরাতের সরকারি হাসপাতালে পঞ্চগব্য নিঃসৃত কোভিড নিরাময়ের ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরুর পথে।

Comments
Loading...