শ্রীনগর বিমানবন্দরে আটক সীতারাম ইয়েচুরি, ডি রাজা, নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বাম নেতাদের বাধা নিরাপত্তা বাহিনীর

জম্মু-কাশ্মীরে ঢুকতে বাধা। কংগ্রেসের গুলাম নবি আজাদের পর এবার শ্রীনগর বিমানবন্দরে আটক করা হল সিপিএমের সাধারন সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ও সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক ডি রাজাকে। আগে থেকে জানানো সত্ত্বেও তাঁদের উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে বাধা দেওয়া হচ্ছে, অভিযোগ ইয়েচুরির।

কাশ্মীরে সিপিএমের নেতা ইউসুফ তারিগামির শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। রবিবার থেকেই গৃহবন্দি তারিগামির সঙ্গে দেখা করতে শুক্রবার সকালে শ্রীনগর উড়ে যান সীতারাম ইয়েচুরি এবং সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক ডি রাজা। তারিগামির পাশাপাশি কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে দেখা করে কাশ্মীরে দলের ভবিষ্যৎ কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা করারও পরিকল্পনা ছিল বাম নেতাদের। কিন্তু শুক্রবার শ্রীনগর বিমানবন্দরে নামতেই তাঁদের আটকে দেয় নিরাপত্তা বাহিনী। একটি লিখিত অর্ডার তাঁদের দেখানো হয়। নিরাপত্তাজনিত কারণেই তাঁদেরকে শ্রীনগরে যেতে দেওয়া হয়নি বলে খবর।

সীতারাম ইয়েচুরির অভিযোগ, বৃহস্পতিবারই জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিককে লিখিতভাবে তাঁরা জানিয়েছিলেন, অসুস্থ সিপিএম নেতা তথা প্রাক্তন বিধায়ক এম ওয়াই তারিগামি ও অন্যান্য দলীয় কর্মীর সঙ্গে দেখা করতে যাবেন। কিন্তু শুক্রবার সকালে শ্রীনগর বিমানবন্দরে নামার পরেই তাঁদের আটক করে নিরাপত্তারক্ষীরা। ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে বামেরা। সিপিএমের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে দলের সাধারণ সম্পাদকের আটক হওয়াকে অনৈতিক বলে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।
জম্মু-কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা সরিয়ে নেওয়ার পর থেকেই উপত্যকায় অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি। অঘোষিত কার্ফু জারি রয়েছে কাশ্মীরে। কেন্দ্রীয় সরকারি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে পথেও নেমেছিলেন বাম নেতারা। তারপরই তাঁরা সিদ্ধান্ত নেন, কাশ্মীরে গিয়ে পরিস্থিতি জরিপ করা হবে, কথা বলা হবে উপত্যকার বাম নেতৃত্বের সঙ্গে। কিন্তু শুক্রবার বিমানবন্দরেই আটক হতে হল সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি এবং সিপিআইয়ের সাধারণ সম্পাদক ডি রাজাকে। সংবাদসংস্থাকে টেলিফোনে ইয়েচুরি জানিয়েছেন, তাঁরা শ্রীনগরে ঢোকার আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছেন। পাশাপাশি কড়া সমালোচনা করেছেন কেন্দ্রের।

 

Comments
Loading...