দু’দিন পর নদী থেকে মিলল সিসিডি কর্ণধার সিদ্ধার্থের দেহ, আত্মহত্যা বলে অনুমান পুলিশের, পাশে দাঁড়িয়ে ট্যুইট আনন্দ মাহিন্দ্রার

নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পরে মৃতদেহ মিলল ‘ক্যাফে কফি ডে’-র কর্ণধার ভি জি সিদ্ধার্থের। বুধবার সকাল সাড়ে ৬ টা নাগাদ নেত্রবতী নদী থেকে একটি মৃতদেহ উদ্ধার করেন মৎস্যজীবীরা। দেহটি সিসিডি কর্তা ভি জি সিদ্ধার্থের বলে চিহ্নিত করেছে তাঁর পরিবার। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, আত্মহত্যা করেছেন ভি জি সিদ্ধার্থ। এই প্রেক্ষিতে মাহিন্দ্রা গ্রুপের চেয়ারম্যান আনন্দ মাহিন্দ্রার ট্যুইট, আমি ওঁনার সম্পর্কে কিছুই জানি না। তাঁর আর্থিক গতিপ্রকৃতি নিয়ে আমার কোনও ধারণা নেই। কিন্তু একটা কথাই বলতে পারি, ব্যবসায় মন্দা যেন কোনও উদ্যোক্তার ব্যবসায়িক মানসিকতা ধ্বংস করতে না পারে। তাহলে সেটা উদ্যোগের মৃত্যু হিসেবেই গণ্য হয়।
ভারতের বৃহত্তম কফি চেন ‘ক্যাফে কফি ডে’-এর প্রতিষ্ঠাতা তথা কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এস এম কৃষ্ণার জামাতা ভি জি সিদ্ধার্থ গত সোমবার গাড়িতে ম্যাঙ্গালুরু যাবার পথে নেত্রবতী ব্রিজের কাছে চালককে গাড়ি থামানোর নির্দেশ দেন। বলেন, একটু হেঁটে আসছি। কিন্তু এক ঘন্টা কেটে যাওয়ার পরেও তিনি ফেরেননি। এরপর ভি জি সিদ্ধার্থের গাড়ির চালক তাঁর পরিবারকে ফোন করে ঘটনার কথা জানান। সিদ্ধার্থের পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশে জানানো হয়। সিসিডি কর্ণধারের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে পুলিশ। তদন্তে নেমে পুলিশের হাতে একটি চিঠি উঠে আসে। ভিজি সিদ্ধার্থের সই করা সেই চিঠিতে লেখা ছিল, প্রবল আর্থিক চাপে তিনি বিধ্বস্ত। দীর্ঘদিন ধরে লড়াই করে তিনি ক্লান্ত, আর চাপ নিতে পারছেন না। তাই এবার হাল ছেড়ে দিচ্ছেন।
মঙ্গলবার থেকে ভি জি সিদ্ধার্থকে খুঁজতে কোস্টগার্ড, হোম গার্ড, উপকূল পুলিশ নেত্রবতী সেতুর নীচে তল্লাশি চালায়। স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদের সময়, এক মৎস্যজীবী দাবি করেন, কোট্টাপুরা এলাকার নেত্রবতীর ব্রিজের ওপর থেকে সোমবার রাতে এক ব্যক্তিকে নদীতে ঝাঁপ দিতে দেখেছেন তিনি। তদন্তে নেমে পুলিশও জানতে পারে, কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এস এম কৃষ্ণার জামাতা সিদ্ধার্থকে সোমবার রাতে নেত্রবতী নদীর ধারে শেষ বারের মতো দেখা গিয়েছিল। দীর্ঘ তল্লাশি অভিযানের পর বুধবার সকালে সিসিডি কর্ণধারের দেহ উদ্ধার হয়।

Comments
Loading...