মরশুমের প্রথম বড় ম্যাচ গোল শূন্য ড্র, দু’দলেরই বিরক্তিকর রক্ষণাত্মক ফুটবলে হতাশ যুবভারতী

প্রায় ৬৫ হাজার দর্শক মরশুমের প্রথম বড় ম্যাচ দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন যুবভারতীতে। তাঁদের অবশ্য বাড়ি ফিরতে হল শূন্য হাতেই। বড় ম্যাচ নিষ্ফলা। খেলা শেষ হল ০-০ ফলে। ম্যাচ শেষে দুই কোচ স্বস্তি নিয়ে বাড়ি ফিরলেন। সাবধানী ফুটবলে জয় হল দুজনেরই। গোটা ম্যাচের নির্দিষ্ট কিছু সময় বাদ দিলে, দুই দলের ফুটবল খুশি করতে পারেনি সমর্থকদের। যদিও ম্যাচে তুলনামূলকভাবে বেশি সুযোগ পেয়েছিল মোহনবাগান। সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে, যুবভারতীতে ভাসতেই পারত পালতোলা নৌকা।
দুই কোচই দল নামিয়েছিলেন চরম রক্ষণাত্মক স্ট্র্যাটেজিতে। ম্যাচে ধারে ভারে অনেকটাই এগিয়ে ছিল ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু দলের মূল দুই ফুটবলার কোলাডো এবং বিদ্যাসাগরকে মাত্র শেষ কুড়ি মিনিট খেলালেন আলেজান্দ্রো। ইস্টবেঙ্গল কোচের স্ট্র্যাটেজি বুঝতে পারেননি কেউ। ১৬ মিনিটের মাথায় বেইতিয়ার ফ্রি-কিকে ফ্রান গঞ্জালেজের হেড অল্পের জন্য বাইরে যায়। তবে ম্যাচের সহজতম সুযোগটি নষ্ট হয় ৪৩ মিনিটে। মেহেতাবের থেকে বল ছিনিয়ে নিয়েছিলেন সুহের। চেষ্টা করেও আটকাতে পারেননি মার্তি। অনেকটা গতি বাড়িয়ে ফাঁকায় গোলরক্ষককে পেয়ে সোজা তাঁর হাতে মারেন কেরালার স্ট্রাইকার।
৬০ মিনিটে আবার ফাঁকা গোল মিস। আবার মোহনবাগান। আবার সুহের। এবার আশুতোষ মেহেতার ক্রসে পা লাগাতে পারলেন না সুহের। ইস্টবেঙ্গলের সুযোগ বলতে রোনাল্ডোর শট বাঁচিয়ে দেন দেবজিৎ। শেষ কুড়ি মিনিটে আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টা করে ইস্টবেঙ্গল। তবে তাতে লাভ হয়নি।

Comments
Loading...