মহিলা ফুটবল লিগ: অনেক বছর পর মহিলা ফুটবল দল গড়ল ইস্টবেঙ্গল, উদ্যোগে নেই মোহনবাগান-মহামেডানের

শতবর্ষের বছরেই আবার মহিলা ফুটবল দল গঠন করছে ইস্টবেঙ্গল। মহিলা ফুটবল লিগকে ঢেলে সাজাতে চাইছে আইএফএ। তাই আইএফ’এর পক্ষ থেকে তিন বড় ক্লাবকে অনুরোধ করা হয় নিজেদের মহিলা ফুটবল দল তৈরি করার জন্য। সে অনুরোধ সাড়া দিয়ে সবার আগে এগিয়ে এসেছে ইস্টবেঙ্গল।
ইস্টবেঙ্গলের মহিলা ফুটবল দলের কোচ করা হয়েছে ভারতীয় মহিলা ফুটবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক এবং কিংবদন্তি ফুটবলার কুন্তলা ঘোষ দস্তিদারকে। টানা তিন দিন ট্রায়াল হয়েছে ইস্টবেঙ্গল মাঠে। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে দেড়শো জন মহিলা ফুটবলার ট্রায়াল দিতে এসেছিলেন। সেখান থেকে আপাতত বেছে নেওয়া হয়েছে ৩৫ জনকে। তাঁদের মধ্যে থেকে চূড়ান্ত ট্রায়াল পর্বে বেছে নেওয়া হবে ২৫ জনকে। কুন্তলা ঘোষ দস্তিদার বলছেন, ‘বড় ক্লাব যদি মহিলা ফুটবল দল করে, তাহলে অবশ্যই তা নিয়ে আগ্রহ তৈরি হয়। আশা করব ভবিষ্যতে আরও মেয়েরা ফুটবলে আগ্রহী হবে।’ ইস্টবেঙ্গলের ফুটবল সচিব রাজা গুহ বলছেন, ‘আমরা আগেও মহিলা ফুটবল দল করেছিলাম। কিন্তু লিগটাই ঠিকঠাক চলেনি। এবার আশা করব লিগটা অন্তত ঠিকঠাক চলবে।’

তবে ইস্টবেঙ্গল মহিলা ফুটবল দল তৈরি করলেও, আপাতত মোহনবাগান এবং মহামেডানের পক্ষ থেকে সেরকম কোনও ইতিবাচক ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। মোহনবাগান এবং মহামেডান কর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, দুই দলেরই মহিলা ফুটবল দল করার সবথেকে বড় প্রতিবন্ধকতা হল অর্থ। কারণ আপাতত দুই ক্লাবেরই বড় স্পনসর নেই। তাই মহিলা ফুটবলে টাকা ঢালার মতো আপাতত কোনও পরিকল্পনা নেই তাদের। তবে আইএফএ এখনও আশাবাদী, শেষ অবধি মহিলা ফুটবল দল গঠন করে এবারের লিগে নামবে বাকি দুই প্রধানও। এখনও পর্যন্ত যা খবর, ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে শুরু হবে মহিলা ফুটবল লিগ। এই মহিলা ফুটবল লিগের অন্যান্য দলগুলো হল, দীপ্তি সংঘ, শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব, কলকাতা পুলিশ, পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ, এসএসবি ব্যাটেলিয়ান, চাঁদনি স্পোটিং, মৈত্রী সংসদ, মানিক ফুটবল কোচিং, ইনভেনশন ইত্যাদি। এখন দেখার মহিলা ফুটবল লিগে বড় ক্লাব ফিরে আসায় এই লিগকে নিয়ে নতুন করে উৎসাহ তৈরি হয় কিনা।

Comments
Loading...