ফের তেড়েফুঁড়ে শুরু কৃষক আন্দোলন, আলোচনার ডাক মোদীর

গান্ধী হত্যার দিন 'সদ্ভাবনা দিবস' পালন আন্দোলনরত কৃষকদের

এবার অনশনে কৃষকরা। শনিবার গান্ধী হত্যার দিন সদ্ভাবনা দিবস পালন করলেন আন্দোলনরত কৃষকরা। এদিন সকালে ৯ টা থেকে প্রতিকী অনশন শুরু হয়, যা চলে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত। এই অবস্থায় গাজিপুর ও সিঙ্ঘু সীমান্ত থেকে লক্ষাধিক কৃষক ফের দিল্লির দিকে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে এদিন সর্বদলীয় বৈঠক থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, কৃষক নেতারা একটা ফোন করলেই ফের তাঁদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করা যাবে। তিনি বলেন, আলোচনার মাধ্যমেই সমাধানসূত্র বের করতে হবে, দেশের সুবিধার কথা ভাবতে হবে আমাদের সকলকেই।

অন্যদিকে কৃষকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘সদ্ভাবনা দিবসে’র মধ্য দিয়ে গান্ধীজির আদর্শ পালন করতে চান তাঁরা। আন্দোলন শান্তির পক্ষে ছিল আর শান্তির পক্ষেই থাকবে।

প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন দীর্ঘ ২ মাস ধরে চলা কৃষক আন্দোলন হিংসাত্মক হয়ে ওঠে। শুক্রবার সিঙ্ঘু সীমান্তে কৃষকদের বিরুদ্ধে পালটা বিক্ষোভ দেখান কিছু মানুষ। তারা নিজেদের স্থানীয় বাসিন্দা বলে দাবি করলেও ভাইরাল হওয়া বিভিন্ন ছবিতে দেখা গিয়েছে তারা এর আগে উগ্র হিন্দুত্ববাদী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছে। এই অবস্থায় ফের একবার শান্তির বার্তা দিয়ে গান্ধীর মৃত্যু দিবসে ‘সদ্ভাবনা দিবস’ পালন করলেন আন্দোলনরত কৃষকরা।

২৬ জানুয়ারি ঘটনার পর কৃষক আন্দোলন স্তিমিত হবে বলে আশায় ছিলেন বিজেপি নেতৃত্ব। কিন্তু রাতারাতি বদলে যায় প্রেক্ষাপট। কৃষক নেতা রাকেশ টিকায়তের আহ্বানে সাড়া দিয়ে হরিয়ানা, পশ্চিম উত্তরপ্রদেশ থেকে দলে দলে কৃষক রওনা দেন গাজীপুর সীমানার উদ্দেশ্যে। ১০ লক্ষাধিক লোকের মহা পঞ্চায়েতে শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন রাকেশ টিকায়ত। আপাত স্তিমিত কৃষক আন্দোলন ফের গা ঝাড়া দিয়ে ওঠে।

Comments
Loading...