Farmers Protest Update: কৃষি আইন অসাংবিধানিক ও দেশবিরোধী, দেশের মাটি বিক্রির চক্রান্ত, বলল TMC

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার পর এবার দেশের মাটি বিক্রি করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে। বহুজাতিক সংস্থার হাতে সারা দেশকে বিক্রি করে দেওয়ার চক্রান্ত চলছে। শুক্রবার মোদী সরকারের বিরুদ্ধে এমনই সব অভিযোগ তুলল তৃণমূল। সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদারের কথায়, ২০০৬ সালে সিঙ্গুরে কৃষকদের স্বার্থে অনশনে বসেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। আজ ৪ ডিসেম্বর সেই অনশনের ১৫তম বর্ষপূর্তিতে ফের দেশের কৃষকদের আন্দোলন আরও বৃহদাকারে ছড়িয়ে দেবে তৃণমূল। সেই সঙ্গে কেন্দ্রের নয়া কৃষি আইন নিয়ে বামেদের আন্দোলনকে কটাক্ষ করে তৃণমূল সাংসদের মন্তব্য, মমতার থেকে ১৫ বছর পিছিয়ে রয়েছে সিপিএম।

এদিন তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক থেকে সিঙ্গুরে অনশনরত মমতা ব্যানার্জির লেখা একটি কবিতা পাঠ করেন কাকলি ঘোষদস্তিদার। তিনি বলেন, ১৫ বছর আগে যে কৃষকদের জমি পুনরুদ্ধারে আন্দোলনে নেমেছিলেন মমতা ব্যানার্জি। আর আজ যখন কৃষক বিরোধী আইন তৈরি করে রাজ্যের হাত থেকে সমস্ত ক্ষমতা কেন্দ্র কুক্ষিগত করছে, তখন আবার রুখে দাঁড়াবেন মমতাই। তিনি জানান, ইতিমধ্যে হরিয়ানায় পৌঁছে গিয়েছেন তৃণমূলের প্রতিনিধি সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। সেখানকার আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন তৃণমূল নেত্রী।  তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রের এই কৃষি আইন অসাংবিধানিক এবং দেশবিরোধী। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের বাইপাস করে একের পর এক অর্ডিন্যান্স এনে আইন করা কেন্দ্রের এক ‘বদভ্যাস’ হয়ে গিয়েছে বলে তোপ দাগেন তিনি। কিন্তু দেশের কৃষক স্বার্থে কেন্দ্রকে এই আইন প্রত্যাহার করতেই হবে। এই আইনের ফলে ফের ভারতে দুর্ভিক্ষ দেখা দেবে, কৃষকদের মৃত্যু হবে বলে মন্তব্য করেন কাকলি।

কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বৃহস্পতিবারই ট্যুইট করে দেশজুড়ে আন্দোলনে নামার ডাক দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। শুক্রবার দলের তরফে সেই আন্দোলনকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার ডাক দেওয়া হল।

Comments
Loading...