মধ্যরাতে শক্তি হ্রাস, টাওতের দাপটে ধ্বংসস্তূপ গুজরাত, মহারাষ্ট্রের বিস্তীর্ণ এলাকা

মধ্যরাত থেকে ধীরে ধীরে ঘুর্ণিঝড়ের দাপট কমতে শুরু করে

সোমবার গোটা দিন ধরে চলল ‘টাওতে’র দাপট। চলতি বছরে প্রথম ঘূর্ণিঝড়। সোমবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ গুজরাট উপকূলে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় টাওতে।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, সেই সময় হাওয়ার গতিবেগ ছিল প্রতি ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার। তবে মধ্যরাত থেকে ধীরে ধীরে ঘুর্ণিঝড়ের দাপট কমতে শুরু করে।

সূত্রের খবর, ঘূর্ণিঝড় টওতের দাপটে মুম্বই উপকূলের কাছে ডুবে যায় ‘পি ৩০৫’ নামের একটি জাহাজ। ওই জাহাজে যাত্রী ছিলেন ২৭৩ জন। তাঁদের মধ্যে ১৪৬ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

এই অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলা করতে এবং উদ্ধারের জন্য নৌ বাহিনীর আইএনএস কোচি, আইএনএস কলকাতা সহ ৪ টি যুদ্ধজাহাজকে কাজে লাগানো হয়েছে। মুম্বইয়ের নৌ-সেনা ঘাঁটি থেকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে একাধিক হেলিকপ্টার।

ঘূর্ণিঝড় টওতের প্রভাবে সুরাত সহ একাধিক এলাকায় গাছ উপড়ে পড়েছে। সকাল থেকেই রাস্তা পরিস্কার ও গাছ কাটার কাজে নেমেছে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতর।

টওতের অভিমুখ গুজরাট উপকূলে দিকে থাকলেও। এদিন ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব লক্ষ্য করা যায় মহারাষ্ট্রেও। সোমবার মুম্বইয়ে সারাদিন ধরেই চলেছে ভারী বৃষ্টি। ঝড়ের দাপটে উল্টে যায় গেটওয়ে অব ইন্ডিয়ার সামনে থাকা সমস্ত ব্যারিকেড।

গুজরাট, মহারাষ্ট্রের আগেই ঝড়ের দাপট শুরু হয় কর্নাটকে। বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের তথ্য অনুযায়ী, উপকূলবর্তী এলাকার মোট ১২১ টি গ্রাম ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কর্নাটকে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮।

অন্যদিকে, কেরলেও ঘূর্ণিঝড় টওতের প্রভাবে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন ট্যুইট করে জানান, ঝড়ের দাপটে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে প্রায় ১৫০০ বাড়ি। সরকারের তরফে উপকূলবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক থাকতে অনুরোধ করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় টাওতের দাপটে ৪ রাজ্যে সবমিলিয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের।

Comments
Loading...