হাথরস কাণ্ড রাজ্যে হিংসা ছড়ানোর চক্রান্ত, বিরোধী রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতা সহ বিভিন্ন ধারায় মামলা যোগীর পুলিশের

হাথরস কাণ্ডে চক্রান্তের অভিযোগ করেছিলেন আগেই। এবার যোগী আদিত্যনাথের উত্তর প্রদেশ পুলিশ বিরোধী রাজনৈতিক দলের কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগে এফআইআর দায়েরের রাস্তায় হাঁটল।

রাজ্য সরকারের বদনাম করতে ও হিংসা ছড়াতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে, হাথরস কাণ্ডের পর এই অভিযোগে বিভিন্ন থানায় মোট ২১ টি মামলা দায়ের করেছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ। সোশ্যাল মিডিয়া এবং প্রকাশ্য জনসভার মাধ্যমে সাম্প্রদায়িকতা ও হিংসা ছড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ যোগী সরকারের পুলিশের।

১২৪ এ ধারায় (রাষ্ট্রদ্রোহিতা), ১৫৩ এ ধারায় ( বিভিন্ন জাতী ও গোষ্ঠীর মধ্যে দাঙ্গা বাধানোর চেষ্টা), ষড়যন্ত্রের চেষ্টা ইত্যাদি নানা অভিযোগে হাথরস জেলাতেই ৬ টি মামলা দায়ের হয়েছে। তবে এই মামলা দায়ের হয়েছে অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে। রাজ্য জুড়ে বাকি ১৬ টি মামলায় অবশ্য নাম ধরে ধরে এফআইআর দায়ের করেছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ।

হাথরসের তরুণীর ধর্ষণ হয়নি। রাজ্য সরকারের বদনাম করতে ও হিংসা ছড়াতেই ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। এই মর্মে সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা দিয়েছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। তার আগেই অবশ্য মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ অভিযোগ করেন তাঁর সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। সোমবার তিনি বলেন, কিছু মানুষ রাজ্যের উন্নয়ন দেখতে পারছেন না, তাঁরাই সাম্প্রদায়িক উস্কানি ও হিংসা প্রচার করছেন। মুখ্যমন্ত্রীর এই অভিযোগের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ২১ টি মামলা দায়ের করল উত্তর প্রদেশ পুলিশ।

উত্তর প্রদেশের এডিজি (আইন-শৃঙ্খলা) প্রশান্ত কুমার বলেন, হাথরস জেলায় যে কটি মামলা দায়ের হয়েছে তার মধ্যে একটিতে সমাজবাদী পার্টির কর্মী-সমর্থক এবং আর একটিতে রাষ্ট্রীয় লোক দলের কর্মীদের নাম রয়েছে। ধস্তাধস্তি করে অভিযুক্তরা গ্রামে ঢুকতে চায় বলে দাবি পুলিশের। আর একটি মামলা দায়ের হয়েছে কংগ্রেস কর্মীদের বিরুদ্ধে। এছাড়াও একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়ানোর অভিযোগে এফআইআর হয়েছে কয়েকজন কংগ্রেস কর্মীর বিরুদ্ধে। ভীম আর্মির বিরুদ্ধে রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখানোর অভিযোগে মামলা হয়েছে বলে জানান প্রশান্ত কুমার। এছাড়া রাজ্য ডিজিপির অফিস থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে কোভিড গাইডলাইন এবং ১৪৪ ধারা অমান্য, ভুয়ো তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে কয়েকটি সংগঠন ও ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। হাথরসের পুলিশ সুপারিন্টেনডেন্ট বিনীত জসওয়াল জানান, মামলাগুলির মধ্যে ‘মূল’ এফআইআর দায়ের হয়েছে চাঁদপা থানায়। যেখানে কয়েকজনের বিরুদ্ধে নির্যাতিতার পরিবারকে টাকা দিতে চাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। কল ডিটেলস সহ এর উপযুক্ত তথ্য প্রমাণ তাঁদের কাছে আছে এবং সময় মতো তা নিয়ে আইনি পদক্ষেপ হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন অফিসার।

Comments
Loading...