ব্যবসা শুরু ও নির্বিঘ্নে চালানোর নিরিখে ১৪ ধাপ উঠে ভারত বিশ্বে ৬৩ তম স্থানে, জানাল বিশ্বব্যাঙ্কের রিপোর্ট

আর্থিক মন্দার ভ্রূকুটির মধ্যে ভালো খবর মোদী সরকারের জন্য। ভারতে ব্যবসা শুরু করা ও তা নির্বিঘ্নে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজ আগের চেয়ে অনেকটাই সহজ হয়েছে, জানাল সদ্য প্রকাশিত বিশ্বব্যাঙ্কের রিপোর্ট। এই নিরিখে বিশ্বব্যাঙ্কের রিপোর্টে ১৪ ধাপ উপরে উঠল ভারত।
বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়েছে ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের ‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’ শীর্ষক রিপোর্ট। ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের সংশ্লিষ্ট রিপোর্ট বলছে, গত এক বছরের মধ্যে ভারতে ব্যবসা চালানোর কাজ অনেকটাই সহজ হয়েছে। ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের ১৯০ টি দেশের তালিকায় ভারত রয়েছে ৬৩ তম স্থানে। গত বছরের তুলনায় ১৪ ধাপ উপরে উঠে এসেছে ভারত। ভারতের বিজনেস স্কোর ৭১।  শুধু তাই নয়, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে এই তালিকায় প্রথম স্থানে রয়েছে ভারত। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ভারতের পেছনে রয়েছে ভুটান ও নেপাল।
চলতি মাসের শুরুতে ওয়ার্ল্ড ইকনমিক ফোরামের গ্লোবাল কম্পেটিটিভনেস ইনডেক্সে ৬৮ তম স্থানে নেমে গিয়েছিল ভারত। মোট ১০ টি ক্ষেত্রে ভারত খারাপ ফলাফল করেছিল। অন্যদিকে, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া থেকে ইন্ট্যারন্যাশনাল মনিটরি ফান্ড এবং ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্ক, একত্রে সবাই ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি নেমে যাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে। এই প্রেক্ষিতে ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের ‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’ শীর্ষক রিপোর্ট কিছুটা স্বস্তি দিতে পারে মোদী সরকারকে।
ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের ‘ইজ অফ স্টার্টিং বিজনেস’ তালিকায় অর্থাৎ, ব্যবসা শুরুর সময়ে সুবিধার ব্যাপারে ভারতের র‍্যাঙ্ক হয়েছে ১৩৬। ব্যবসা নির্মাণ অনুমতি সংক্রান্ত তালিকায় ভারতের স্থান ২৭ নম্বরে, ব্যবসায় বিদ্যুৎ পরিষেবার সুবিধায় ভারত পেয়েছে ২২ নম্বর র‍্যাঙ্ক, সম্পত্তি রেজিস্ট্রি সংক্রান্ত ব্যাপারে ভারতের স্থান ৫৪, ছোট বিনিয়োগকারীদের রক্ষার ব্যাপারে ভারতের স্থান ১৩। এছাড়া, আয়কর পরিশোধে ১১৫, সীমান্ত বাণিজ্য প্রসারে৬৮, ব্যবসায়িক চুক্তি প্রয়োগে ১৬৩ এবং দেউলিয়া সমস্যা সমাধানে ৫২ তম স্থান দখল করেছে ভারত।
২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার সময় ওয়ার্ল্ড ব্যাঙ্কের এই র‍্যাঙ্কিংয়ে ভারতের স্থান ছিল ১৪২। ২০১৮ সালে ১৯০ টি দেশের মধ্যে ‘ইজ অফ ডুয়িং বিজনেস’ এর তালিকায় ভারত উঠে এসেছিল ৭৭ নম্বরে।

Comments
Loading...