নেহেরু-গান্ধীর কারণেই ভারত আজ বেঁচে আছে! মোদী সরকারকে তোপ শিবসেনার

‘সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট’ নিয়ে কেন্দ্রকে চরম কটাক্ষ শিবসেনার মুখপত্র সামনার

নেহেরু-গান্ধীর তৈরি নীতির কারণেই ভারত আজ বেঁচে আছে। দেশের এই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে কম উন্নতশীল দেশওগুলি যখন করোনা যুদ্ধে ভারতের সঙ্গে একযোগে লড়ছে, সেই সময়ও মোদী সরকার সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট বন্ধ করতে রাজি নয়!

শনিবার দেশে করোনা পরিস্থিতিতে ‘সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট’ নিয়ে কেন্দ্রকে চরম কটাক্ষ শিবসেনার মুখপত্র সামনার।

উদ্ধব ঠাকরের দলের মুখপত্র সামনায় একটি সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, পন্ডিত জওহরলাল নেহেরু, ইন্দিরা গান্ধী এবং মনমোহন সিংহ সহ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীরা বিগত ৭০ বছরে যে পদ্ধতি তৈরি করেছিলেন তা আজ দেশকে কঠিন সময়ের মুখোমুখি হতে সহায়তা করেছে। ভারত বেঁচে আছে নেহরু-গান্ধীর তৈরি পদ্ধতির জন্যই।

সামনায় আরও লেখা হয়েছে, UNICEF ভারতকে করোনা সংক্রমণ বিশ্বের জন্য ভয়ঙ্কর বলে চিহ্নিত করেছে। তারা আবেদন করেছে ভারতের এই যুদ্ধে যেন অন্যান্য দেশ পাশে এসে দাঁড়ায়। সেই মতো বাংলাদেশ ১০ হাজার রেমডেসিভির পাঠিয়েছে। এমনকি ভুটান, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, মায়ানমারের মতো প্রতিবেশী ছোট ছোট দেশ ‘আত্মনির্ভর ভারতকে’ সাহায্য করছে। কিন্তু এই প্রলয়ের মুখে প্রধানমন্ত্রী সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট বন্ধ করতে রাজি নন!

শিবসেনার প্রশ্ন, তুলনামূলক গরিব দেশগুলো যখন ভারতকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসছে, তখন কেন কেন্দ্র সরকারের ২০ হাজার কোটি টাকার সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্ট বন্ধ হচ্ছে না? দলের দাবি, বর্তমান শাসকের ভুল নীতির কারণেই ভারতের পরিস্থিতি খারাপতর হচ্ছে। করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার কথা বারবার বলছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু বিজেপি সরকার সে দিকে কর্ণপাত না করে এখন মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে লড়ে চলেছে।

সামনায় প্রকশিত সম্পাদকীয়তে লেখা হয়েছে, বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী দাবি করেছেন নীতিন গডকরীকে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া উচিত, কারণ হর্ষবর্ধন ব্যর্থ। সেখানে লেখা হয়েছে, আগে দেখা যেত পাকিস্তান, রোয়ান্ডা, কঙ্গোর মতো ছোট ছোট দেখকে অন্যান্য দেশ সাহায্য পাঠাত, এখন আত্মনির্ভর ভারতকে একই ভাবে অন্য দেশ থেকে সাহায্য নিতে হচ্ছে।

দেশে যখন করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে হাহাকার উঠেছে তখন বিতর্কের কেন্দ্রে চলে এসেছে সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প। আগামী দিনে ডিলিমিটেশনের পর জনপ্রতিনিধি এবং সরকারি কর্মীদের জায়গায় সমস্যা মেটাতে সেন্ট্রাল ভিস্তা পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রেক্ষিতে কেন এই বিশাল কর্মকাণ্ড স্থগিত রাখা হবে না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। সম্প্রতি সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রজেক্টকে জরুরি পরিষেবার আওতায় আনা নিয়েও নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এই প্রেক্ষিতে সেই সেন্ট্রাল ভিস্তা নিয়েই মোদী সরকারকে বিঁধল শিবসেনা।

Comments
Loading...