রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় কোবাড ঘান্ডিকে জামিন দিল গুজরাতের আদালত

২০১০ সালের দেশদ্রোহিতার একটি মামলায় জামিন পেয়েছেন মাও নেতা কোবাড ঘান্ডি। ১৪ ই অক্টোবর সুরাটের একটি স্থানীয় আদালত তাঁর জামিন মঞ্জুর করে। বর্তমানে তিনি গুজরাতের লাজপুর সেন্ট্রাল জেলে বন্দি।

সোমবার কোবাড ঘান্ডির জামিনের পক্ষে তাঁর আইনজীবী কিরীট পানওয়ালা আদালতে জোরাল সওয়াল করে বলেন, এই মামলায় অভিযুক্ত ২৩ জন ইতিমধ্যেই জামিন পেয়ে গিয়েছেন এবং কোবাড ঘান্ডির জামিনের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে যে আবেদন করা হয়েছে, তাও খারিজ হয়ে গিয়েছে। ৭৩ বছরের কোবাড গান্ধি অসুস্থ বলেও আদালতে জানান তাঁর আইনজীবী। তাই তাঁকে জামিন দেওয়া হোক। বিচারক কোবাড ঘান্ডির আইনজীবীর এই যুক্তি মেনে নেন। ২৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ২৬ অগস্ট ঝাড়খণ্ড থেকে ট্রান্সফার ওয়ারেন্টে তাঁকে গুজরাতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। পুলিশ সূত্রে খবর কোবাড নিজেই চেয়েছিলেন গুজারাত পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে সেখানে নিয়ে যাক। বিষয়টি নিয়ে তিনি নিম্ন আদালতে চিঠিও লিখেছিলেন।

উল্লেখ্য, কোবাড ঘান্ডির বিরুদ্ধে গুজরাত পুলিশের মূল অভিযোগ ছিল তিনি দক্ষিণ গুজরাতে মাওবাদী নেটওয়ার্ক গড়ে তুলছেন এবং মাওবাদীদের সাহায্য করছেন। তবে কোবাড ঘান্ডি যে দক্ষিণ গুজরাতে মাও কার্যকলাপে সরাসরি জড়িত তা আদালতে প্রমাণ করতে পারেনি পুলিশ।

Comments
Loading...