LIC র ২৫% শেয়ার বিক্রির পথে কেন্দ্র, আসন্ন বাদল অধিবেশনে বিল আসছে সংসদে

জাতীয় জীবনের অঙ্গ লাইফ ইন্সিওরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া বা LIC। জীবন বিমার নাম প্রত্যেক ভারতীয়ের যাপনের সঙ্গে মিশে গিয়েছে। শ্রীনগর থেকে শ্রীরামপুর, মুম্বই থেকে মেঘালয়, হাজার হাজার পরিবারের বড় ভরসার নাম এলআইসি। এবার কি তাতে বেসরকারিকরণের পালা?

৭ সেপ্টেম্বর, সোমবার দ্য হিন্দু বিজনেস লাইনে প্রকাশিত হয়েছে একটি প্রতিবেদন। তাতে বলা হয়েছে আসন্ন বাদল অধিবেশনে LIC Act ১৯৫৬ এ সংশোধনী এনে অংশীদারি বিক্রির সংস্থান ঢোকাতে চায় মোদী সরকার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ডিপার্টমেন্ট অফ ফিনান্সিয়াল সার্ভিসেস (DFS) এর কর্তারা সংশোধনীর একটি ড্রাফ্ট তৈরি করে ফেলেছেন। এলআইসি বিক্রির সেই খসড়া পাঠানো হয়েছে নীতি আয়োগ, সেবি, আইআরডিএর কাছে। সংশোধনীর ফলে দেশের সবচেয়ে বড় জীবন বিমাকারী সংস্থার শেয়ার বিক্রি করা যাবে। ধুঁকতে থাকা এলআইসির ক্ষেত্রে যা হবে অক্সিজেনের সমতুল্য। সূত্রের খবর, এক্ষেত্রে নির্মলা সীতারমনের মন্ত্রকের লক্ষ্য, কয়েক ধাপে এলআইসির ২৫ শতাংশ মতো অংশীদারি বিক্রি করে নগদ জোগাড় করা। তা যদি হয়, তাহলে এলআইসি ভারতের অর্থনীতির ইতিহাসে বৃহত্তম আইপিও (ইনিশিয়াল পাবলিক অফারিং) হবে।

১৯৫৬ সালের LIC Act এ শেয়ার বিক্রির সংস্থান নেই। সংশোধনী এনে প্রথমে সেই সংস্থান যুক্ত করা হবে। আসন্ন বাদল অধিবেশনে সেই কাজ সেরে রাখতে চায় কেন্দ্র। আগেই এলআইসির ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রির ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছিল সরকার। কিন্তু করোনা কালে যখন সরকারের উন্নয়নমূলক কাজে বিপুল বরাদ্দ বৃদ্ধির আশু প্রয়োজন, কর আদায় যখন তলানিতে, সেই সময় এলআইসির ২৫ শতাংশ শেয়ার বেচে খরচ তুলে নিতে পারবে কেন্দ্র। তাতে এলআইসি কর্মীদের পাশাপাশি দেশের সার্বিক কল্যাণ হবে। এমনটাই মনে করে মোদী সরকার। এবার সেই লক্ষ্যে দৌড়ও শুরু হয়ে গেল বলে।

ওয়াকিবহাল মহল জানাচ্ছে, মোদী সরকার এলআইসির ২৫ শতাংশ শেয়ার আইপিওর মাধ্যমে বিক্রি করতে চায়। এতে ৭৫ শতাংশ শেয়ার কেন্দ্রের হাতেই থেকে যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে ১০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করবে সরকার। তারপর ধাপে ধাপে বাকিটা হবে।

কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা এসেছে রাহুল গান্ধীর ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে। সেখানে তিনি এই সংক্রান্ত একটি খবর শেয়ার করে লিখেছেন, মোদীজি সরকারি কোম্পানি বেচে দাও অভিযানে নেমেছেন। নিজের তৈরি করা আর্থিক দুরাবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে দেশের একের পর এক সম্পত্তি বেচে চলেছেন।

সরকারি সূত্রের খবর, খসড়া চূড়ান্ত করে তা মন্ত্রিসভায় পেশ হবে। মন্ত্রিসভার সবুজ সঙ্কেত নিয়ে তা সংসদে পেশ করবে সরকার। এলআইসি বিক্রির ক্ষেত্রে রিটেল ইনভেস্টারদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। এছাড়া ডিসকাউন্ট ও বোনাস পাবেন তাঁরা। এলআইসি কর্মী ও রিটেল ইনভেস্টারদের জন্য ৫ শতাংশ শেয়ার রিজার্ভ রাখা হবে বলে দাবি সরকারি সূত্রের।

Comments
Loading...