খারিজ দায়রা-রায়, মহুয়া মৈত্রের করা জি নিউজের সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা চলবে, জানালো দিল্লি হাইকোর্ট

তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্রের দায়ের করা জি নিউজের এডিটর ইন চিফের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা স্থগিতের দায়রা আদালতের নির্দেশ খারিজ করল দিল্লি হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি ব্রিজেশ শেঠি মানহানির মামলা স্থগিতের দায়রা আদালতের ২৫ শে সেপ্টেম্বরের রায়কে পুরোপুরি নাকচ করে দিয়েছেন।

দিল্লি হাইকোর্টে পেশ করা আবেদনে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র জানিয়েছিলেন, দায়রা আদালত প্রাক শমন পর্যায়ে পৌঁছে যাওয়া কোনও মামলা এভাবে স্থগিত রাখার নির্দেশ দিতে পারে না। জি নিউজের এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরী তৃণমূল সাংসদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ভাষণের অভিযোগ তুলে যে মামলা করেছিলেন, তার প্রেক্ষিতেই সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মানহানির মামলা স্থগিতের নির্দেশ দিয়েছিল দায়রা আদালত।

দায়রা আদালতের এই নির্দেশের প্রেক্ষিতেই দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র। জি নিউজের এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলায় মহুয়া মৈত্র জানিয়েছিলেন, তাঁর ২৫ জুনের ভাষণ, যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি পোর্টালের প্রতিবেদন থেকে হুবহু টুকে দেওয়ার অভিযোগ করেছিলেন সুধীর চৌধুরী, তা আসলে আমেরিকার একটি মিউজিয়ামে টাঙানো হলোকাস্ট পোস্টার থেকে অনুপ্রাণিত।

মহুয়া মৈত্র তাঁর অভিযোগ পত্রে লিখেছেন, জি নিউজ এই প্রসঙ্গে একটি অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে যেখানে দাবি করা হয়, সাংসদ অন্যায়ভাবে একটি প্রতিবেদন থেকে টুকে সংসদে নিজের ভাষণ বলে তা দাবি করেছেন।

মহুয়ার মামলার প্রেক্ষিতে জি নিউজও পাল্টা তৃণমূল সাংসদের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করে। সুধীর চৌধুরীদের দাবি ছিল, সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় জি নিউজের বিরুদ্ধে মানহানিকর মন্তব্য করেছেন মহুয়া মৈত্র। জি নিউজের দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে ২৫ শে অক্টোবর মহুয়া মৈত্রকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল।

কিন্তু দিল্লি হাইকোর্টের এই রায়ের প্রেক্ষিতে এবার জি নিউজের এডিটর ইন চিফ সুধীর চৌধুরীর বিরুদ্ধে মহুয়ার দায়ের করা মানহানির মামলা এগিয়ে নিয়ে যেতে আর কোনও বাধাই রইল না বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।

Comments
Loading...